শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ১২:২০ পূর্বাহ্ন

উপ-সম্পাদক :: দিদার সরদার
প্রধান সম্পাদক :: সমীর কুমার চাকলাদার
প্রকাশক ও সম্পাদক :: কাজী মোঃ জাহাঙ্গীর
যুগ্ম সম্পাদক :: মাসুদ রানা
সহ-সম্পাদক :: এস.এম জুলফিকার
প্রধান নির্বাহী সম্পাদক :: মামুন তালুকদার
নির্বাহী সম্পাদক :: সাইফুল ইসলাম
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক :: আবুল কালাম আজাদ
নিহত যুবলীগ নেতা রুমানের আবেগঘন স্ট্যাটাস নিয়ে তোলপাড়

নিহত যুবলীগ নেতা রুমানের আবেগঘন স্ট্যাটাস নিয়ে তোলপাড়

বাউফল প্রতিনিধি ॥ পটুয়াখালীর বাউফলে আওয়ামীলীগের অভ্যান্তরীন কোন্দলে নিহত কেশবপুর ইউনিয়ন যুবলীগীগ নেতা রুমানের নিজ ফেসবুক আইডিতে লেখা আবেগঘন দুটি স্ট্যাটাস নিয়ে গত দুদিন পর্যন্ত এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। স্টাটাস দুটি পড়লে নিহতের খুনের সাথে কারা জড়িত তা স্পষ্টভাবে বুঝা যায় বলে মন্তব্য করেছেন এলাকাবাসী। অথচ খুনের আগে যাদেরকে দায়ী করে নিহত রুমান তাঁর ফেসবুক আইডিতে স্টাটাস দিয়ে গেছেন তাদের মধ্যে একজনকে হত্যা মামলার আসামীই করা হয়নি। কোন অদৃশ্য কারনে ওই ব্যক্তিকে আসামী করা হয়নি তা জানেনা এলাকাবাসী। তাই এ নিয়ে এখন এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।
এ বছরের জুলাই মাসের ১৩ তারিখ বিকেল ৫ টায় নিহত রুমন নিজ ফেসবুক আইডিতে যা লিখেছিলেন তা হুবহু তুলে ধরা হলোঃ- কাল রাত দশটায় চেয়ারম্যান বাড়ির দরজায় চটপটি খেতে গেছিলাম,সে এসে বোললো তুই আমারে অনেক জ্বালাইছ তোরে খুন করমু,ফাস্ট কেউ আমার সামনে এমন কথা বলছে আর আমি কিছু বলি নাই,তবে হু তার মত আমার জায়গায় না,আমি খুন হতে তার বাসায় যাব দেখি খুন করে না ভাগে। ফেরাউন এবার ইগোতে হেবি লাগছে,লেটস প্লে। দেখি আপনার কত পাওয়ার খুব তাড়াতাড়িই আসছি পারলে ঠেকাও,বেস্ট অফ লাক।কত বড় মাতাল হলে প্রকাশ্যে এমন কথা বলে,,করোনায় কার কি হবে তার খবর নাই সে বাড়ির দরজায় মদ খেয়ে খুনের হুমকি দেয়, পাগল।
এর আগে এপ্রিলের ২৬ তারিখ এক স্টাটাসে যা লিখেছিলেন তাও হুবহু তুলে ধরা হলোঃ- যদি আমার কোন র্দূঘটনা বা অপমৃত্যু হয় তাহলে কেশবপুরের লাভলু চেয়ারম্যান ও অভি দায়ী।তাই আমি প্রশাসনের কাছে ও আমার মহান নেতার কাছে এর বিচার দাবি করছি।বাউফলের কেউ না পারায় তারা পেশাদার খুনি আনায় ব্যস্ত।মিথ্যা বললে তদন্তকরে আমার শাশিÍ দিন,আর সত্যি বললে এই লাভু চেয়ারম্যানের বিচার করুন,খুন করার চেষ্ট করে উল্টো ভাগছে তাই ভাড়া খুনি আনতেছে, ।আমি প্রশাসনকে তদন্তের জন্য বিনীত অনুরোধ করছি।আর ন্যায় কাজ করা কি পাপ? বাউফল বাসীর কাছে প্রশ্ন।কথা মিথ্যা হলে আইন যে সাজা দিবে আমি নিতে রাজি।কথাটা পুরোপুরি সত্যি,লাভু চেয়ারম্যান ও অভি আমার যে কোন ক্ষতির জন্য দায়ি,আমার দোষটা কি ন্যায় কাজ করি সত্য বলি সেটা???
উল্লেখ্য, কোরবানীর পরের দিন রবিবার সন্ধ্যায় কেশবপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও কেশবপুর কলেজের অধ্যাক্ষ সালেহউদ্দিন পিকুর ছোট ভাই রুমান তালুকদার(৩০) ও তাঁর চাচাতো ভাই ইসাত তালুকদারকে(২৪) কুপিয়ে ও পিটিয়ে হত্যা করে ওই ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন লাভলুর সমর্থকরা।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Dokhinerkhobor.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com