বুধবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২০, ১২:১৭ পূর্বাহ্ন

উপ-সম্পাদক :: দিদার সরদার
প্রধান সম্পাদক :: সমীর কুমার চাকলাদার
প্রকাশক ও সম্পাদক :: কাজী মোঃ জাহাঙ্গীর
যুগ্ম সম্পাদক :: মাসুদ রানা
সহ-সম্পাদক :: এস.এম জুলফিকার
প্রধান নির্বাহী সম্পাদক :: মামুন তালুকদার
নির্বাহী সম্পাদক :: সাইফুল ইসলাম
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক :: আবুল কালাম আজাদ
জকিগঞ্জে কুশিয়ারার পানি আবার বাড়ছে

জকিগঞ্জে কুশিয়ারার পানি আবার বাড়ছে

সিলেটের জকিগঞ্জ উপজেলার সীমান্তবর্তী অমলসিদে কুশিয়ারা নদীর উৎসমুখে আবার পানি বাড়ছে। তবে সুরমা নদীর দুটো পয়েন্টে পানি কমছে। সীমান্ত নদী হিসেবে পরিচিতি লোভার পানি সকালে কমে দুপুরে এক দফা বেড়েছে। আজ সোমবার দৈনিক পানির স্তর-সম্পর্কিত তথ্যের সূত্রে এ কথা জানিয়েছেন পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) সিলেট কার্যালয়ের নির্বাহী প্রকৌশলী মুহাম্মদ শহীদুজ্জামান সরকার।

বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তবর্তী বরাক মোহনা কুশিয়ারা নদীর উৎসমুখ। নদীটি সিলেট অঞ্চলের অন্যতম দীর্ঘ নদী। সিলেটের পাঁচটি উপজেলা হয়ে সুনামগঞ্জ ও হবিগঞ্জের দুটো উপজেলা দিয়ে প্রবহমান কুশিয়ারার পানির প্রবাহ পরিমাপ করা হয় চারটি স্থানে। এর মধ্যে উৎসমুখে সিলেটের জকিগঞ্জের অমলসিদ পয়েন্ট একটি।

পাউবো জানায়, কুশিয়ারার চারটি পয়েন্টের মধ্যে শুধু ফেঞ্চুগঞ্জ পয়েন্টে পানি বাড়ছিল। ৩৭ দিন পর ফেঞ্চুগঞ্জ পয়েন্টে পানি কমে বিপৎসীমার নিচে নামে। এরপর চারটি পয়েন্টের পানির প্রবাহ কমছিল। গতকাল রোববার সুরমা ও সীমান্ত নদী লোভায় পানি বাড়ার পরদিন সোমবার কুশিয়ারার উৎসমুখে পানি বাড়ছে।

দৈনিক পানির স্তর-সম্পর্কিত তথ্য অনুযায়ী, অমলসিদ পয়েন্টে কুশিয়ারার বিপৎসীমা ১৫ দশমিক ৪০ মিটার। ১২ জুলাই ১৫ দশমিক ২৫ মিটার থেকে পানি বেড়ে ১৩ জুলাই সকালে ১৫ দশমিক ৫৩ মিটার দিয়ে পানি প্রবাহিত হয়। এরপর থেকে বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। সপ্তাহ গড়িয়ে ২০ জুলাই পানি বিপৎসীমার নিচে নেমে পর্যায়ক্রমে কমছিল। গতকাল সন্ধ্যায় ১২ দশমিক ৮৬ মিটার থেকে বেড়ে সোমবার সকালে ১৩ দশমিক শূন্য ৬ মিটার দিয়ে প্রবাহিত হয়। দুপুর ১২টায় পানি আরেক ধাপ বেড়ে ১৩ দশমিক শূন্য ৯ মিটার দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। তবে কুশিয়ারার উৎসমুখ ছাড়া সিলেট ও মৌলভীবাজার জেলার বাকি তিনটি পয়েন্টে পানি কমছিল।

এদিকে সিলেট অঞ্চলের আরেক দীর্ঘ নদী সুরমার উৎসমুখ হিসেবে পরিচিত কানাইঘাট পয়েন্টে গতকাল পানি বাড়লেও আজ সকাল থেকে কমছে। সিলেট শহর পয়েন্টেও পানি বাড়ছিল। সেখানেও কমছে। একই সঙ্গে সুরমার সঙ্গে মিলিত হওয়া সীমান্তবর্তী লোভাছড়া দিয়ে প্রবহমান লোভা নদীর পানিও কমছে।

লোভায় ১১ দশমিক ৮৭ মিটার থেকে নেমে সোমবার সকাল নয়টায় ১১ দশমিক ৭৮ মিটার দিয়ে প্রবাহিত হয়। দুপুরে সেখানে পানি কিছুটা বাড়ে। দুপুর ১২টার পানির পরিমাপ অনুযায়ী লোভার পানির স্তর ছিল ১১ দশমিক ৮০ মিটার। সুরমা নদীর কানাইঘাট পয়েন্টে পানি ১০ দশমিক ৮৯ মিটার থেকে নেমে ১০ দশমিক ৬৮ মিটার দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। সুরমার সিলেট শহর পয়েন্টে পানি রোববার সন্ধ্যায় ৮ দশমিক ৮৬ মিটার দিয়ে প্রবাহিত হয়। সেখানে পানি কমে আজ দুপুরে ৮ দশমিক ৭০ মিটার দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Dokhinerkhobor.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com