শনিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২০, ১২:০৯ পূর্বাহ্ন

উপ-সম্পাদক :: দিদার সরদার
প্রধান সম্পাদক :: সমীর কুমার চাকলাদার
প্রকাশক ও সম্পাদক :: কাজী মোঃ জাহাঙ্গীর
যুগ্ম সম্পাদক :: মাসুদ রানা
সহ-সম্পাদক :: এস.এম জুলফিকার
প্রধান নির্বাহী সম্পাদক :: মামুন তালুকদার
নির্বাহী সম্পাদক :: সাইফুল ইসলাম
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক :: আবুল কালাম আজাদ
সংবাদ শিরোনাম :
ঝালকাঠিতে আইনজীবী সহকারীর অত্যাচারে অতিষ্ঠ এলাকাবাসীর মানববন্ধন

ঝালকাঠিতে আইনজীবী সহকারীর অত্যাচারে অতিষ্ঠ এলাকাবাসীর মানববন্ধন

গাজী মো.গিয়াস উদ্দিন বশির, ঝালকাঠি ॥ ঝালকাঠিতে এক আইনজীবী সহকারীর মাদক ব্যবসা, ইভটিজিং ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ডে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে সদর উপজেলার রূপসিয়া গ্রামের মানুষ। শাহিন খান নামে ওই আইনজীবী সহকারীর (মহুরী) বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়ে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী। মঙ্গলবার বেলা ১২টায় ঝালকাঠি প্রেস ক্লাবের সামনের সড়কে ঘণ্টাব্যাপী এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন অত্যাচার নির্যাতনের শিকার এলাকবাসী।
মানববন্ধনকারীরা অভিযোগ করেন, রূপসিয়া গ্রামের ইউসুফ আলী খানের ছেলে শাহিন খান (৩৫) এলাকায় চিহ্নিত একজন মাদক কারবারি। তাঁর কাছে কেউই নিরাপদ নয়। দীর্ঘদিন ধরে নারীদের ইভটিজিং, সন্ত্রাসী কর্মকান্ড ও মিথ্যা মামলা দিয়ে মানুষকে হয়রানি করে আসছে শাহীন। এসব কাজে কেউ বাঁধা দিলে, তার ওপর শুরু হয় নির্যাতন-নিপীড়ন। সোমবার রাতে শাহিন খান প্রতিবেশী হানিফ হাওলাদারকে কুপিয়ে আহত করে। তাকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শাহিনের সন্ত্রাসী কর্মকান্ড, মাদক কারবার ও ইভটিজিংয়ের হাত থেকে রক্ষা পেতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকার মানুষ। মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন রূপসিয়া গ্রামের বাদল হাওলাদার, আলেয়া বেগম, ফিরোজ মুন্সি ও সোহাগ হাওলাদার। রূপসিয়া গ্রামের বাদল হাওলাদার বলেন, শাহিন খান এলাকার নিরিহ মানুষদের নানাভাবে হয়রানি করে আসছেন। সোমবার স্থানীয় এক নারীকে দিয়ে আমার নামে এবং একই গ্রামের পলাশ মুন্সি, রাহাত খান ও হানিফ হাওলাাদারের নামে একটি নারী নির্যাতনের মামলা করায় শাহিন। মামলার অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা। আমরা এ ব্যাপারে তার কাছে জানতে চাইলে, সে হামলা চালায়। তবে এসব অভিযোগ অস্বীকার করে শাহিন খান বলেন, স্থানীয় কয়েকজন ব্যক্তি আমাকে মারধর করেছে, এখন উল্টো আমার বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করছে। একজন আইনজীবী সহকারী বলেন, আমরা মহুরীগিরি করে কোন রকম দুই বেলা ভাত খেতে পারি না, আর শাহীন থানা পুলিশ ও ডিবি পুলিশকে ম্যানেজ করে মাদক মামলার আসামীদের নিজের কবজায় এনে জামিন করিয়ে পরবর্তিতে মাদকব্যবসায়ীদের ব্যবসায় অর্থ খাটিয়ে লাখ লাখ টাকার মালিক হয়েছে । শাহীনের তিনটি মোটরসাইকেল ও দুইটি ম্যাজিক গাড়ী রয়েছে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Dokhinerkhobor.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com