বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১, ১২:২৪ পূর্বাহ্ন

উপ-সম্পাদক :: দিদার সরদার
প্রধান সম্পাদক :: সমীর কুমার চাকলাদার
প্রকাশক ও সম্পাদক :: কাজী মোঃ জাহাঙ্গীর
যুগ্ম সম্পাদক :: মাসুদ রানা
সহ-সম্পাদক :: এস.এম জুলফিকার
প্রধান নির্বাহী সম্পাদক :: মামুন তালুকদার
নির্বাহী সম্পাদক :: সাইফুল ইসলাম
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক :: আবুল কালাম আজাদ
সংবাদ শিরোনাম :
বানারীপাড়ায় প্রধানমন্ত্রীর ৭৫তম জন্মদিন উপলক্ষে যুবলীগের বৃক্ষ রোপন বানারীপাড়ায় প্লানবিহীন ভবন অপসারনের দাবীতে ব্যাবসায়ীদের মানববন্ধন বানারীপাড়ার সাংবাদিক এস মিজানুল ইসলাম “কবি কাজী নজরুল ইসলাম স্মৃতি পদক-২০২১” পেয়েছেন মাল্টা চাষে স্বাবলম্বী বানারীপাড়ার প্রবাসী হাবিবুর রহমান চালু হওয়ার অপেক্ষায় পটুয়াখালীর দুই মৎস্য অবতরণ কেন্দ্র হিজলায় ৬শত ৪৭ শিশু শিক্ষার্থীর ভবিষ্যত অনিশ্চিত ঝালকাঠিতে ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারদের মানববন্ধন ও স্মারকলিপি পেশ বরিশালে জবাইকৃত নিন্মমানের মহিষের মাংসসহ আটক ৩ মহান শিক্ষা দিবস উপলক্ষে বরিশালে ছাত্র সমাবেশ পটুয়াখালীর লাউকাঠী-লোহালিয়া নদীতে মাছের পোনা অবমুক্ত
বসলো পদ্মাসেতুর পঞ্চম স্প্যান, দৃশ্যমান হলো পৌনে এক কিলোমিটার

বসলো পদ্মাসেতুর পঞ্চম স্প্যান, দৃশ্যমান হলো পৌনে এক কিলোমিটার

দখিনের খবর ডেক্স ॥ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলেছে পদ্মাসেতুর কাজ। সেতুর ৪১ ও ৪২ নম্বর পিলারের ওপর ‘৭ এফ’ স্প্যান বসানোর মাধ্যমে দৃশ্যমান হলো সেতুর পৌনে এক কিলোমিটার (৭৫০ মিটার)। এর মধ্য দিয়ে শরীয়তপুরের জাজিরা পাড়ের সঙ্গে প্রথমবারের মতো সংযুক্ত হলো সেতু। গতকাল শুক্রবার সকাল ১১টা থেকে স্প্যান বসানোর কাজগুলো শুরু হয়। দুপুর ২টায় জাজিরা প্রান্তে স্প্যানটি পিলারের ওপর বসানো হয়। সেতুর ৩৭, ৩৮, ৩৯, ৪০, ৪১ নম্বর পিলারে চারটি ধূসর রংয়ের স্প্যান বসানোর মাধ্যমে ৬০০ মিটার কাঠামো দৃশ্যমান হয়। চারটি স্প্যান বসানো হয়েছে নদীতে এবং পঞ্চম স্প্যানটি বসেছে সেতুর একেবারে শেষ প্রান্তে।
এরআগে, গত বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে মুন্সিগঞ্জের মাওয়া কুমারভোগ কন্সট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে তিন হাজার ৬০০ টন ধারণ ক্ষমতার ‘তিয়ান ই’ ক্রেনে করে প্রায় ৬ কিলোমিটার দূর থেকে ১৫০ মিটার দীর্ঘ ও তিন হাজার ১৪০ টন ওজনের স্প্যানটি আনা হয়। ওই দিন সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে ভাসমান ক্রেনের মাধ্যমে স্প্যানটি জাজিরায় পৌঁছায়। পদ্মা সেতুর সহকারী প্রকৌশলী (মূল সেতু) হুমায়ুন কবির জানান, ক্রেনের সহায়তায় পিলারের ওপর স্প্যান রাখা হয়েছে। স্থায়ীভাবে বসতে ২-৩ ঘণ্টা সময় লাগবে। ওয়েল্ডিংয়ের কাজসহ আরও কিছু কাজ বাকি রয়েছে। পদ্মা সেতুর প্রকৌশলী সূত্রে জানা যায়, চারটি স্প্যান বসানোর অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে সকাল থেকেই পিলারের ওপর স্প্যান বসানোর কার্যক্রম শুরু হয়। স্প্যান বহনকারী ক্রেনটিকে ৪১ ও ৪২ নম্বর পিলারের সামনে পজিশন অনুযায়ী আনা হয়। এরপর লিফটিং ক্রেনের সাহায্যে পিলারের ওপর রাখা হয় স্প্যানটিকে। নদীর পাড়ে অবস্থিত ৪২ নম্বর পিলারটি। পাড়ের মাটি ড্রেজার দিয়ে কাঁটা হয় ক্রেনটির সুবিধার্থে। এ ছাড়া স্প্যান ওঠানোর আগে ওয়েট টেস্ট, ট্রায়াল লোড টেস্ট, বেজ প্লেট, পাইল পজিশন, মেজারমেন্টসহ আনুষঙ্গিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা সফলভাবে সম্পন্ন হয়। সাময়িক সময়ের জন্য নৌরুটে নৌযানগুলোর গতি কমিয়ে চলাচল করতে বলা হয়। ২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর বসানো হয় প্রথম স্প্যানটি। এর প্রায় ৪ মাস পর চলতি বছরের ২৮ জানুয়ারি দ্বিতীয় স্প্যানটি বসে। এর মাত্র দেড় মাস পর ১১ মার্চ শরীয়তপুরের জাজিরা প্রান্তে ধূসর রঙের তৃতীয় স্প্যানটি বসানো হয়। এরপর ২ মাস পর ১৩ মে বসে চতুর্থ স্প্যানটি। পঞ্চম স্প্যানটি বসলো ১ মাস ১৬ দিনের মাথায়। স্প্যানের অংশগুলো চীন থেকে তৈরি করে জাহাজে করে আনা হয় বাংলাদেশে। ফিটিং করা হয় মাওয়ার কুমারভোগ কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ডে। সেতুটির নির্মাণ শেষ হলে দেশের দক্ষিণাঞ্চলের ২২ জেলার সঙ্গে সড়ক ও রেলপথে সরাসরি যুক্ত হবে রাজধানী ঢাকা। ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ এ সেতুতে ৪২ পিলারের ওপর বসবে ৪১টি স্প্যান। পদ্মা বহুমুখী সেতুর মূল আকৃতি হবে দোতলা। কংক্রিট ও স্টিল দিয়ে নির্মিত হচ্ছে এ সেতুর কাঠামো।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Dokhinerkhobor.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com