শনিবার, ২৪ এপ্রিল ২০২১, ১২:৩১ পূর্বাহ্ন

উপ-সম্পাদক :: দিদার সরদার
প্রধান সম্পাদক :: সমীর কুমার চাকলাদার
প্রকাশক ও সম্পাদক :: কাজী মোঃ জাহাঙ্গীর
যুগ্ম সম্পাদক :: মাসুদ রানা
সহ-সম্পাদক :: এস.এম জুলফিকার
প্রধান নির্বাহী সম্পাদক :: মামুন তালুকদার
নির্বাহী সম্পাদক :: সাইফুল ইসলাম
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক :: আবুল কালাম আজাদ
সংবাদ শিরোনাম :
করোনা চিকিৎসায় ব্যবহৃত ১৮০০ টাকার ইনজেকশন ৪ হাজার টাকা বরিশাল শেবাচিমের করোনা ওয়ার্ডে আইসিইউ বেড বৃদ্ধি অর্ধগলিত মাথা ও দাড়ালো অস্ত্র উদ্ধার: ভারত থেকে জমি বিক্রির টাকা নিতে এসে খুন হন ২ ভাই, গ্রেফতার-৩ কলাপাড়ায় ২৫ কি:মি: কাঁচা রাস্তার বেহাল দশায় ৩ ইউনিয়নের মানুষের জনদূর্ভোগ চরমে আগৈলঝাড়ায় স্বাস্থ্য বিধি না মানায় পথচারী ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিককে ভ্রাম্যমাণ আদালতের জরিমানা করোনা পরিস্থিতির কারনে আগৈলঝাড়ায় পোনা মাছ চাষী ও বিক্রেতাদের মানবেতর জীবন যাপন চরফ্যাসনে প্রবাসী পরিবারকে মিথ্যা মামলায় হয়রানি অভিযোগ প্রতিপক্ষের হয়রানিতে নিজ বাড়িতেই অবরুদ্ধ প্রবাসীর পরিবার মানবিক খাদ্য ব্যাংক চালু করেছে বরিশাল নাগরিক সংসদ বিয়ে না করেও স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে বসবাস, আটক বানারীপাড়ায় কবি শঙ্খ ঘোষের পৈতৃকভিটার স্মৃতি রক্ষায় সরকারি সহায়তা প্রয়োজন
পিরোজপুরে কলেজছাত্রের আত্মহত্যা

পিরোজপুরে কলেজছাত্রের আত্মহত্যা

পিরোজপুর প্রতিনিধি ॥ পিরোজপুরের ইন্দুরকানীতে সুইসাইড নোট লিখে মো. হাফিজুল ইসলাম হাওলাদার (২৫) নামের এক কলেজছাত্র আত্মহত্যা করেছেন। গতকাল সোমবার দুপুরে নিজ ঘরের আড়ার সঙ্গে ওড়না পেঁচানো ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তিনি স্থানীয় সরকারি কলেজের ডিগ্রির ছাত্র ও শেখ ফজলুল হক মনি ব্রিজের টোল আদায়ের কাজ করতেন। নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, সকাল সাড়ে ৮টার দিকে হাফিজুলকে তার পরিবারের লোকজন ঘরের আড়ার সঙ্গে গলায় ওড়না পেঁচানো ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পান। এ সময় তাকে উদ্ধার করে প্রথমে ইন্দুরকানী ও পরে জেলা হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত্যু বলে ঘোষণ করেন। তবে কী কারণে তিনি আত্মহত্যা করেছেন তা জানা যায়নি। তিনি গত ২ মাস আগে বিয়ে করেছেন। এদিকে তার ঘরে পাওয়া সুইসাইড প্যাডে লিখেছেন, বিদায় পৃথিবী। আমার মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ী নয়। দয়া করে আমাকে মাফ করে দিয়েন। দয়া করে আমার লাশটা ময়না তদন্ত করবেন না। বাবা-মা আমার জন্য অনেক কষ্ট করেছেন বিনিময়ে কিছুই দিতে পারিনি। আমার এমন পরিণতি হবে কখনো ভাবিনি। আপনারা আমার চাওয়া কখনো অপূরণ রাখেননি। যা চাইছি দিছেন, কখনো কৈফিয়ত চাননি। এরপরও আমার এমন পরিণতি হলো কেন? বাবা-মা আমাকে মাফ করে দিয়েন। বোনরা আমার সবাই ভালো থেকো, যদি পারো আমার জন্য দোয়া করো। বড় ভাইয়া আমাদের পরিবারটাকে নিজের মতো দেখে রাইখেন আর ছুরু বড় হলে নিজের বোনের মতো বিবাহ দিয়েন। লামু সোনা পাখি, আমার জন্য অনেক কষ্ট করেছো। তোমার জন্য কিছুই করতে পারি নি। আমাকে ক্ষমা করে দিও। তিনি তার মা-বাবর উদ্দেশে আরও লিখেন, আব্বা আমার গাড়িটা বিক্রি করে আমার কাছে পাওনা ৮১ হাজার টাকা (চার পাওনাদারের নাম ও পাওনা টাকা উল্লেখ করে) দিয়ে (পরিশোধ) দিবেন। ইন্দুরকানী থানার ওসি বলেন, তার আত্মহত্যার খবর পেয়েছি। লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। নিহতের মা আমাকে জানিয়েছেন তার কাছে জ¦ীনের আছর ছিল। চিকিৎসকের পরামর্শ মতে গত জানুয়ারি মাসে তাকে বিয়ে করানো হয়।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Dokhinerkhobor.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com