শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৪:৩৫ অপরাহ্ন

উপ-সম্পাদক :: দিদার সরদার
প্রধান সম্পাদক :: সমীর কুমার চাকলাদার
প্রকাশক ও সম্পাদক :: কাজী মোঃ জাহাঙ্গীর
যুগ্ম সম্পাদক :: মাসুদ রানা
সহ-সম্পাদক :: এস.এম জুলফিকার
প্রধান নির্বাহী সম্পাদক :: মামুন তালুকদার
নির্বাহী সম্পাদক :: সাইফুল ইসলাম
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক :: আবুল কালাম আজাদ
রাজশাহীর সংসদ সদস্যের দ্বিতীয় স্ত্রী দাবি করে ফেসবুকে স্ট্যাটাস

রাজশাহীর সংসদ সদস্যের দ্বিতীয় স্ত্রী দাবি করে ফেসবুকে স্ট্যাটাস

হাফিজুর রহমান পান্না, রাজশাহী ব্যুরো ॥ রাজশাহীর একজন সংসদ সদস্যের দ্বিতীয় স্ত্রী দাবি করে নিজের ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছেন এক নারী। রাজশাহী নগরের তেরোখাদিয়া এলাকার লিজা আয়েশা নামের ফেসবুক পেজে ওই নারী একজন এমপির সঙ্গে তোলা ২৪/২৫টি ছবিও পোস্ট করেছেন।
এছাড়াও মেরে ফেলার হুমকি দেয়ার অভিযোগ তুলেও ওই নারী ফেসবুকে আরেকটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন। ওই ফেসবুক প্রোফাইল ও কাভারে এমপির সঙ্গে তোলা ছবি ব্যবহার করেছেন ওই নারী। এ নিয়ে রাজশাহীজুড়ে তোলপাড় শুরু হয়েছে। শনিবার বিকেল ৩টার দিকে লিজা আয়েশা নামের ওই নারী তার ফেসবুকে লিখেছেন, ‘একজন সংসদ সদস্য অনেক বড় অবস্থানের মানুষ তাঁর বিরুদ্ধে চাইলেই কেউ মিথ্যা অপবাদ দিতে পারে না আমার কথা গুলো যদি মিথ্যা হইতো তাহলে এতক্ষণে পুলিশ আমাকে থানায় নিয়ে যেতো। আমি যা কিছু বলছি এবং বলবো সব সত্যিই আপনারা আমাকে বিরক্ত না করে ধৈর্য্য ধরে পাশে থাকুন। সবার সব প্রশ্নের উত্তর ইনবক্সে দেওয়া আমার পক্ষে সম্ভব না আমি এই খানে লিখে দিবো এবং লাইভ ভিডিও দিবো আপনারা দেখলেই সব বুঝতে পারবেন এবং জানতে পারবেন।’ এর একঘন্টা আগে ওই নারী আরেকটি স্ট্যাটাস শেয়ার করেন যেটি তিনি ১৮ ঘন্টা আগে দিয়েছিলেন। এতে তিনি লিখেছেন, ‘এমপি সাহেবের রক্ষিতা বা প্রেমিকা নই দ্বিতীয় বউ আমি।’ আরেকটি স্ট্যাটাসে তিনি লিখেছেন, ‘এমপি সাহেব আমার স্বামী এই কথাটা যদি কারো কাছে অবিশ্বাস্য মনে হয় তাঁরা বিয়ের কাগজ দেখতে পারেন।’ আরেক স্ট্যাটাসে লিজা লিখেছেন, ‘আনেকেই মেরে ফেরার হুমকি দিচ্ছেন। ফেসবুকে তাদের উদ্দেশ্যে বলতেছি মৃত্যুর ভয়ে সত্যি আড়াল করবো না। আট বছর সংসার করেছি। আজ ছবি দিয়েছি।’

বিষয়টি নিয়ে সাংবাদিকরা যোগাযোগ করলে লিজা আয়শা বলেন, ‘তার পরিবারের লোকজনের উপস্থিতিতেই বিয়ে হয়েছিল। ২০১৮ সালের ১১ মে আমাদের বিয়ে হয়। প্রথমে আট বছর আগে আমাদের বিয়ে হয় মৌখিকভাবে। তার বাগমারার বাড়িতে। কিন্তু লিখিত বিয়ের পর গত দুই বছর ধরে তিনি আমাকে গোপনে স্ত্রীর পরিচয় দিয়ে আসছেন। এখন তিনি একটি ভুয়া কাগজ করে আমাকে তালাক দিয়েছেন। সেখানে আমার স্বাক্ষর জাল করা হয়েছে। এ কারণে আমি পরিস্থিতির শিকার হয়ে আমি ফেসবুকে এসব কথা বলেছি। আমি আমার সংসার করতে চাই আমার স্বামীর সঙ্গে।’
ভুয়া কাগজ করে আমাদের তালাক দেয়া হয়েছে দাবি করে লিজা আরও বলেন, ‘আমি তার বিরুদ্ধে মামলা করতে চাই। এ কারণে শুক্রবার নগরের রাজপাড়া থানায় আমি মামলা করতে গেছিলাম। কিন্তু পুলিশ আমার মামলা নেয়নি। তবে আমি আমার স্বামীর সঙ্গে সংসার করতে চাই। তাকে না পেলে আমি আদালতের আশ্রয় নিব।’


আইনগত জটিলতার কারণে ওই সংসদ সদস্যের নাম প্রকাশ করা সম্ভাব হয়নি। তবে ওই সংসদ সদস্য সাংবাদিকদের জানান, ‘ওই নারী আমার পরিচিত। এক সময় তার সঙ্গে যোগাযোগ ছিল। এখন নাই। কিন্তু সে আমাকে ব্লাকমেইল করছে। আমি তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেব।’

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Dokhinerkhobor.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com