শুক্রবার, ২৩ এপ্রিল ২০২১, ১০:৪৪ অপরাহ্ন

উপ-সম্পাদক :: দিদার সরদার
প্রধান সম্পাদক :: সমীর কুমার চাকলাদার
প্রকাশক ও সম্পাদক :: কাজী মোঃ জাহাঙ্গীর
যুগ্ম সম্পাদক :: মাসুদ রানা
সহ-সম্পাদক :: এস.এম জুলফিকার
প্রধান নির্বাহী সম্পাদক :: মামুন তালুকদার
নির্বাহী সম্পাদক :: সাইফুল ইসলাম
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক :: আবুল কালাম আজাদ
সংবাদ শিরোনাম :
রাজশাহী বিভাগে করোনা পরিস্থিতি অবনতি, একদিনে ৮২ শনাক্ত

রাজশাহী বিভাগে করোনা পরিস্থিতি অবনতি, একদিনে ৮২ শনাক্ত

রাজশাহী ব্যুরো: রাজশাহী বিভাগে দিনে দিনে আরও জটিল হচ্ছে করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতি। বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় রাজশাহী বিভাগে ৮২ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। নতুন করে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ১১ জন। এছাড়া সুস্থ হয়েছেন ১১ করোনা রোগী।
বিভাগে এ পর্যন্ত এক হাজার ১৩২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন ২৯২ জন। বিভাগের আট জেলার মধ্যে পাঁচ জেলায় মারা গেছেন ৯ জন। এর মধ্যে রাজশাহীতে তিনজন, নওগাঁয় দুইজন, নাটোরে একনজ, বগুড়ায় একজন ও সিরাজগঞ্জ দুইজন।

বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজশাহী বিভাগীয় স্বাস্থ্য দফতরের পরিচালক ডাঃ গোপেন্দ্র নাথ আচার্য্য গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় রাজশাহী বিভাগে ৮২ জনের করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েছে। এ বিভাগের এক দিনে করোনা সংক্রমণের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রেকর্ড এটি। এর আগের দিন করোনা আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে ৮৮ জন। ফলে গত ৪৮ ঘন্টায় শনাক্ত হয়েছে ১৭০ জন।

এদিন সর্বোচ্চ ২৬ জনের করোনা ধরা পড়েছে বগুড়ায়। আর জয়পুরহাট ১৬ জন, নওগাঁ ও সিরাজগঞ্জ ১৪ জন করে। এছাড়াও রাজশাহীতে পাঁচজন, পাবনায় তিনজন, নাটোরে দুইজন ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ দুইজন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

বিভাগের আট জেলার মধ্যে এ পর্যন্ত বগুড়ায় ৪৭৫ জন, জয়পুরহাটে ২০৫ জন, নওগাঁয় ১৪৬ জন, রাজশাহীতে ৬৬ জন, নাটোরে ৬০ জন, সিরাজগঞ্জে ৭২ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জে ৫৬ জন এবং পাবনায় ৫২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

এ পর্যন্ত করোনা জয় করেছেন নওগাঁয় ৮৯ জন, জয়পুরহাটে ৮০ জন, বগুড়ায় ৪২ জন, রাজশাহীতে ১৩ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জে ১৩ জন, নাটোরে ১১ জন, সিরাজগঞ্জে ৮ জন এবং পাবনায় ৮ জন।

ডাঃ গোপেন্দ্রনাথ আচার্য্য বলেন, রাজশাহী বিভাগে তিনটি ল্যাবে করোনা পরীক্ষা হচ্ছে। এর মধ্যে রাজশাহীতে দুইটি ও বগুড়ায় একটি। এছাড়াও অতিরিক্ত নমুনাগুলো ঢাকায় পাঠানো হচ্ছে।

তিনি বলেন, এ বিভাগে করোনা পরিস্থিতি অবনতির দিকে আছে। মানুষের সচেতনতার কোনো বিকল্প নেই। করোনা মোকাবিলায় মানুষকে সচেতন হতে হবে। অতি জরুরী প্রয়োজন ছাড়া বাড়ির বাইরে বের হওয়া যাবে না। প্রয়োজনে বের হলে মাস্ক পড়তে হবে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চললেই পরিস্থিতির উন্নতি হবে।


 

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Dokhinerkhobor.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com