শুক্রবার, ১৬ অক্টোবর ২০২০, ১০:৩৫ পূর্বাহ্ন

উপ-সম্পাদক :: দিদার সরদার
প্রধান সম্পাদক :: সমীর কুমার চাকলাদার
প্রকাশক ও সম্পাদক :: কাজী মোঃ জাহাঙ্গীর
যুগ্ম সম্পাদক :: মাসুদ রানা
সহ-সম্পাদক :: এস.এম জুলফিকার
প্রধান নির্বাহী সম্পাদক :: মামুন তালুকদার
নির্বাহী সম্পাদক :: সাইফুল ইসলাম
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক :: আবুল কালাম আজাদ
স্বরূপকাঠির দৈহারী বাজারের আঃলীগের অফিসে তালা লাগিয়ে বিতর্কিত কৌশিক হালদারগংরা

স্বরূপকাঠির দৈহারী বাজারের আঃলীগের অফিসে তালা লাগিয়ে বিতর্কিত কৌশিক হালদারগংরা

কৃষ্ণ দাশ, স্বরূপকাঠি ॥ আওয়ামী লীগের রাজনীতির নীতি ও আদর্শকে উপেক্ষা করে দৈহারী ইউনিয়নে বিতর্কিত হওয়ার অভিযোগ উঠেছে দৈহারী গ্রামের অনিমেষ হালদারের ছেলে কৌশিক হালদার(২২) বিরুদ্ধে। স্থানীয় সূত্র জানায় দৈহারী বাজারের মধ্যে স্থানীয় সরকার দলীয় আওয়ামীলীগের অফিস ঘর ছিলো দীর্ঘ দিন ধরে। অথচ স্থানীয় অফিস ঘরে অগণতান্ত্রিক ভাবে তালা লাগিয়ে চরম বিতর্কিত হয়েছে কৌশিক হালদার গংরা।দেশের মধ্যে যখন করোনার আতঙ্কে সকলেই আতঙ্কিত। অথচ বিপদের মোক্ষম সময়কে হাতিয়ার হিসেবে ব্যাবহার করে অফিস ঘরে রাতের অন্ধকারে তালা লাগানোর অভিযোগ কৌশিকের বিরুদ্ধে। জাতির জনকের আদর্শের রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগের রাজনীতির ইতিহাস বহু পুরোনো। অথচ দলের আদর্শের উল্টো স্রোত ধারায় প্রভাবিত হয়ে জামাত শিবিরের ইন্দনে দলীয় অফিসে তালা লাগানোর চরম দাম্ভিকতা দেখিয়েছেন কৌশিক হালদার।
এ ব্যাপারে দৈহারী বাজার এলাকার বেশীরভাগ দোকানদারেরা নাম না প্রকাশের শর্তে স্থানীয় গণ মাধ্যম কর্মীদের বলেন, ঘটনার সত্যতা শতভাগ। আসলে ব্যাবসার স্বার্থে সঠিক চিত্র তুলে ধরার সাহস আমাদের নেই। তবে ভিন্ন কথা বলেন স্থানীয় আওয়ামী লীগের বহু লোকজন। স্পষ্ট ভাষায় বলেন, দলের নিয়ম শৃঙ্খলা উপেক্ষা করে কৌশিক হালদার গংরা স্থানীয় বাজারের অফিসে তালা লাগিয়ে দেয়। তবে ভিন্ন কথা বলেন স্থানীয় আওয়ামী লীগের এক নেতা। আসলে এলাকায় প্রভাব বিস্তারকে কেন্দ্র করে কৌশলের গংরা রাতের অন্ধকারে তালা লাগিয়ে দেয়। অথচ বিগত সময়ে জনপ্রিয় নেতা ও সাবেক এম পি এ কে এম আউয়ালের সময়ে এলাকার বেশীরভাগ শীর্ষ নেতারা বসতেন স্থানীয় আওয়ামীলীগের অফিসে। ক্ষমতার পট পরিবর্তন হওয়ার সাথে সাথে এলাকার কিছু কিছু স্থানীয় নেতা ও কর্মীরা মন্ত্রীর নাম ব্যাবহার করার অপপ্রয়াস চালায় পেশী শক্তির উপর ভর করে। দৈহারী এলাকায় এরিমধ্যে এক ধরনের অনিয়মের বাসা তৈরী করতে দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছেন কিছুকিছু বিপদগামী কর্মীরা ।
সরেজমিনে স্থানীয় গণ মাধ্যম কর্মীরা তালা লাগানোর বিষয়টি স্বচক্ষে দেখা’র জন্য দৈহারী বাজারে যান সঠিক চিত্র তুলে ধরার জন্য। স্থানীয় আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সহ সকলেই ঘৃণা করেন এজাতীয় জগন্যতম কাজের জন্য। তবে ভিন্ন কথা বলেন দৈহারী ইউনিয়নের যুবলীগের বেশকিছু সচেতন নেতারা। আসলে বয়স কম বিদায় দলের আদর্শ নিয়ে মাথা কম খাটায়। আর এখনই যদি সচেতন না হয় তাহলে রাজনৈতিক পরিবেশ নিয়ে এজাতীয় উগ্র কর্মীরা অকালেই ঝড়ে পড়বে। সর্বশেষ স্বরূপকাঠি উপজেলার দৈহারী ইউনিয়নের সচেতন মহলের দাবী এজাতীয় নীতি ও আদর্শহীন কর্মীদের কঠিন শাস্তির আওতায় আনার দাবি জানান। অবশ্য উপজেলা আওয়ামী লীগের এক শীর্ষ নেতা বলেন, ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত পাওয়া গেলে অবশ্যই স্থানীয় পর্যায়ের রাজনীতি থেকে অভ্যাহতি দেওয়া হবে বলে জানান।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Dokhinerkhobor.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com