শনিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৫:২৩ অপরাহ্ন

উপ-সম্পাদক :: দিদার সরদার
প্রধান সম্পাদক :: সমীর কুমার চাকলাদার
প্রকাশক ও সম্পাদক :: কাজী মোঃ জাহাঙ্গীর
যুগ্ম সম্পাদক :: মাসুদ রানা
সহ-সম্পাদক :: এস.এম জুলফিকার
প্রধান নির্বাহী সম্পাদক :: মামুন তালুকদার
নির্বাহী সম্পাদক :: সাইফুল ইসলাম
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক :: আবুল কালাম আজাদ
পিরোজপুর জেলায় বিএনপির পক্ষে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণে সবার শীর্ষে এম আনোয়ারুল ইসলাম পলাশ

পিরোজপুর জেলায় বিএনপির পক্ষে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণে সবার শীর্ষে এম আনোয়ারুল ইসলাম পলাশ

পিরোজপুর জেলা প্রতিনিধি ॥ জাতির কঠিন দুঃসময়ে সরকারের পাশাপাশি বিকল্প হিসাবে করোনার আতঙ্কে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণে এক বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করলো পলাশ। বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের কান্ডারী পিরোজপুর জেলা বি এন পির অন্যতম সদস্য এম আনোয়ারুল ইসলাম পলাশ। ছাত্র রাজনীতি থেকে পথচলা শুরু করে পর্যায়ে ক্রমে যুবদলের নেতা। পরবর্তী সময়ে মূল দলের নেতা হয়ে পিরোজপুরের মধ্যে একটা পাকাপোক্ত অবস্থান তৈরী করতে সক্ষম হয়েছেন ইতিমধ্যে। অবশ্য যুব দলের কেন্দ্রীয় কমিটির মধ্যে বিগত সময়ে স্থান পাওয়ার পর পরই লাইম লাইটে চলে আসেন পলাশ। কেন্দ্রীয় যুব দলের কমিটির মধ্যে অন্যতম সদস্য হয়ে নিজেকে উজাড় করে দেওয়ার চেষ্টা করে। বিগত সময়ে মেধাবী রাজনৈতিক নেতা ও বি এন পির সম্পদ তারেক রহমানের সুনজরে চলে আসেন। শহীদ জিয়ার আদর্শ নিয়ে চলতে শুরু করেন জেলার নেতা পলাশ। বাংলাদেশের রাজনৈতিক কান্ডারী তারেক রহমানের যোগ্য নেতৃত্বের আর্শীবাদ নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে সুকৌশলে । এম আনোয়ারুল ইসলাম পলাশ নিজ যোগ্যতায় জিয়া পরিবারের অন্যতম আস্থার প্রতিক হয়ে উঠে। পরবর্তী সময়ে দলের ক্ষমতায় না থেকেও তারেক রহমানের নির্দেশ মোতাবেক দলের প্রয়জনে এখন পর্যন্ত করোনার সাহায্যে জেলার মধ্যে সবার শীর্ষে অবস্থান। চির আপোষহীন নেত্রীর সুনাম ধরে রাখার জন্য প্রাণপণ চেষ্টা করে যাচ্ছে। জেলার মধ্যে সব উপজেলায় ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করে একটা হৈচৈ ফেলে জেলে দেয় এম আনোয়ারুল ইসলাম পলাশ। প্রতিটি কাজের মধ্যে রয়েছে দারুণ প্রশংসনীয় ভূমিকা। দলের মধ্যে ঘুম হওয়া পরিবারের লোকজনদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে নগত টাকা পয়সা সহ ত্রাণ সামগ্রী বিতরণে একটা আলাদা ইমেজ তৈরী করে পিরোজপুর জেলার রাজনীতির মধ্যে। তারেক রহমানের নির্দেশ পালনে ছিলো বদ্ধ পরিকর। মঠবাড়িয়া, জিয়া নগর, কাউখালী, পিরোজপুর সদর সহ নেছারাবাদ ছিল তালিকায়। অবশ্য জন্মস্থান নাজিরপুর বাদ যায়নি পলাশের যোগ্য নেতৃত্বে। জেলার মধ্যে একটা কঠিন দুঃসময়ে ইতিহাস সৃষ্টি করেছে জেলা বি এন পির সদস্য এম আনোয়ারুল ইসলাম পলাশ। সদা হাস্য উজ্জ্বল ও উদার মনের মানুষ হয়ে অন্যের উপকারে অর্থ বিত্ত বিলিয়ে দিতে বদ্ধ পরিকর নেতা পলাশ । রাজনৈতিক দূর দর্শয়িতা দিয়ে নয় বরং একজন পাকাপোক্ত মানব প্রেমী হয়ে আত্ম মানবতার সেবায় এগিয়ে আসছে পলাশ। রাজনৈতিক পরিবেশ নিয়ে বেড়ে ওঠা হলেও বহু মানবিক গুনে জেলার অনেক নেতাকে পিছনে ফেলছে নিজ যোগ্যতায়। করোনার আতঙ্কে সকলেই আতঙ্কিত সমগ্র বিশ্ব সহ বাংলাদেশের সমগ্র মানবজাতি। গত ২৫ মার্চ হতে সমগ্র বাংলাদেশের মধ্যে লক ডাউনের আওতায় আনা হয়েছে। আর এ কারণে গাও গ্রামের হত দরিদ্র মানুষ পড়েছে মহা বিপাকে। সরকার সময় উপযোগী পদক্ষেপ নিয়ে যাচ্ছে একের পর এক। এদিকে করোনার আতঙ্কে কঠিন দুঃসময়ে সরকারের পাশাপাশি বিকল্প হিসাবে বাংলাদেশের অন্যতম জনপ্রিয় দল বি এন পির ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ কিছুটা কৌশল অবলম্বন করে দারুণ মুন্সীয়ানার ছাপ রেখেছে ইতিমধ্যে। কেন্দ্রীয় যুব দলের সাবেক সদস্য ও জেলা বি এন পির সংগ্রামী সদস্য এম আনোয়ারুল ইসলাম পলাশের নিজ তহবিল থেকে দলের টানে কঠিন দুঃসময়ে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। যদিও সরকারের ত্রাণ সামগ্রী বিতরণে বেশীরভাগ দলীয়করণ, আত্মীয় করণ ও নির্বাচনী করণ ভূমিকা থাকায় সরকারের ভাবমূর্তি কিছুটা ক্ষুন্ন করে চরম অনিয়ম হয়েছে। এদিকে জেলা সহ নাজিরপুর ও বাকী উপজেলায় প্রায় ৬,০০০ হাজার পরিবারের জন্য ত্রাণ সামগ্রী কোন রকম অরাজকতা ছাড়াই গোপনে কিংবা প্রকাশ্যে এম আনোয়ারুল ইসলাম পলাশের নিজস্ব ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করে। এ ব্যাপারে কেন্দ্রীয় যুব দলের সাবেক সদস্য ও জেলা বি এন পির সংগ্রামী সদস্য জনপ্রিয় নেতা এম আনোয়ারুল ইসলাম পলাশের সাথে কথা হয় জেলার ও স্থানীয় গণ মাধ্যম কর্মীদের। জেলার গণ মাধ্যম কর্মীদের বলেন, আসলে আমি দলের টানে দেশের কঠিন দুঃসময়ে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছি। যদিও লোক দেখানো সাহায্য করার পক্ষে নই। সাহায্য সহযোগিতা করবো ঠিকই কিন্তু কাক পক্ষীও জানবে না। তবে আমি আমার সমর্থ অনুযায়ী জেলা সহ নিজ এলাকা নাজিরপুর ও বেশির ভাগ উপজেলার মধ্যে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছি কৌশল অবলম্বন করে। আসলে দলের অনেক কর্মীরা চরম অভাবের কথা মুখে বলতে পারেন না। বেশি সমস্যার মধ্যে হাবুডুবু খাচ্ছে দলের তৃণমূল কর্মীরা। আর এক প্রশ্নের জবাবে এম আনোয়ারুল ইসলাম পলাশ বলেন, আসলে আমি কেন্দ্রীয় যুব দলের সাবেক সদস্য ছিলাম। তারেক রহমানের নির্দেশ পালনে ছিলাম বদ্ধ পরিকর। বর্তমানে আমি পিরোজপুর জেলা বিএনপির একজন সংগ্রামী সদস্য। কঠিন দুঃসময়ে দলের প্রয়োজনে নেতা বানিয়েছেন জেলা সহ কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দরা। কিন্তু সু-সময়ের শীর্ষ বহু জেলা ও উপজলার নেতারা আজ জাতির কঠিন দুঃসময়ে কেহ কেহ গা-ঢাকা দিয়েছে। তবে ব্যাতিক্রম আছে কিন্তু ত্রাণ সামগ্রী বিতরণে। সর্বশেষ তথ্য মতে সরকারের পাশাপাশি দেশের অন্যতম জনপ্রিয় দল বিএনপি ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ সত্যিই প্রশংসার দাবী রাখে পিরোজপুর জেলা সহ সমগ্র বাংলাদেশের মধ্যে। স্বাস্থ্য নীতি মেনে পরিপাটি পরিবেশে জেলা সহ স্ব স্ব এলাকায় বি এন পির ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ চমৎকার পরিবেশে সম্পন্ন হয়েছে। জেলার শীর্ষ নেতারা জেলার গণ মাধ্যম কর্মীদের বলেন, আসলেই দারুণ প্রশংসনীয় ভূমিকা পালন করেছে জেলা বি এন পির সংগ্রামী সদস্য এম আনোয়ারুল ইসলাম পলাশ। জাতির কঠিন দুঃসময়ে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়ে দারুণ প্রশংসনীয় হয়েছে ইতিমধ্যে। তবে জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি ক্ষমতায় না থেকেও পিরোজপুর জেলার রাজনীতির মধ্যে শীর্ষ নেতাদের টপকে গিয়ে সাহায্য সহযোগিতা করে এরি মধ্যেই শীর্ষে অবস্থান পলাশের। সরকারের মত আহামরি না হলেও জাতির কঠিন দুঃসময়ে বিএনপি পক্ষে জেলার হয়ে জনগণের পাশে দাড়িয়েছে চলতি সময়ে দলের কান্ডারী এম আনোয়ারুল ইসলাম পলাশ।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Dokhinerkhobor.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com