শুক্রবার, ১৫ অক্টোবর ২০২১, ০৩:২৪ পূর্বাহ্ন

উপ-সম্পাদক :: দিদার সরদার
প্রধান সম্পাদক :: সমীর কুমার চাকলাদার
প্রকাশক ও সম্পাদক :: কাজী মোঃ জাহাঙ্গীর
যুগ্ম সম্পাদক :: মাসুদ রানা
সহ-সম্পাদক :: এস.এম জুলফিকার
প্রধান নির্বাহী সম্পাদক :: মামুন তালুকদার
নির্বাহী সম্পাদক :: সাইফুল ইসলাম
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক :: আবুল কালাম আজাদ
সংবাদ শিরোনাম :
বানারীপাড়ায় প্রধানমন্ত্রীর ৭৫তম জন্মদিন উপলক্ষে যুবলীগের বৃক্ষ রোপন বানারীপাড়ায় প্লানবিহীন ভবন অপসারনের দাবীতে ব্যাবসায়ীদের মানববন্ধন বানারীপাড়ার সাংবাদিক এস মিজানুল ইসলাম “কবি কাজী নজরুল ইসলাম স্মৃতি পদক-২০২১” পেয়েছেন মাল্টা চাষে স্বাবলম্বী বানারীপাড়ার প্রবাসী হাবিবুর রহমান চালু হওয়ার অপেক্ষায় পটুয়াখালীর দুই মৎস্য অবতরণ কেন্দ্র হিজলায় ৬শত ৪৭ শিশু শিক্ষার্থীর ভবিষ্যত অনিশ্চিত ঝালকাঠিতে ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারদের মানববন্ধন ও স্মারকলিপি পেশ বরিশালে জবাইকৃত নিন্মমানের মহিষের মাংসসহ আটক ৩ মহান শিক্ষা দিবস উপলক্ষে বরিশালে ছাত্র সমাবেশ পটুয়াখালীর লাউকাঠী-লোহালিয়া নদীতে মাছের পোনা অবমুক্ত
সোহাগদল ইউনিয়নবাসীরা নুতন মুখের সন্ধানে চেয়ারম্যান প্রার্থী সরোয়ার হোসেন স্বপনকে চায়

সোহাগদল ইউনিয়নবাসীরা নুতন মুখের সন্ধানে চেয়ারম্যান প্রার্থী সরোয়ার হোসেন স্বপনকে চায়

এন এম দেলোয়ার, জেলা প্রতিনিধি ॥ করোনার আতঙ্কে সকলেই আতঙ্কিত হলেও আজ সেই আতঙ্ক হতে অনেকটা সামলে নিয়েছে স্বরূপকাঠি উপজেলার বাসিন্দারা। দল মত নির্বিশেষে সকলেই মনের দিক দিয়ে বেশ শক্ত অবস্থান নিয়ে সুন্দর ধরণীর বুকে কঠিন সংগ্রাম করে যাচ্ছে। সাহসকে পুঁজি করে স্ব স্ব ধর্মের লোকজন উপরওয়ালাকে মনে প্রাণে বিশ্বাস রেখে হরহামেশা পথ চলছে দেদারসে। এদিকে করোনার সাহায্যের হিসাব নিকাশ খুজতে বসেছে সোহাগদল ইউনিয়নের সাধারণ মানুষরা। বাদ যায়নি শিক্ষিত সমাজের বেশীরভাগ লোকজন। শীর্ষ আলোচনা হচ্ছে করোনার সাহায্য সহযোগিতার পরিমান নিয়ে বিশদ আলোচনা আর আলোচনা। আর সেই আলোচনা থেকে শুরু হয়েছে সোহাগদল ইউনিয়নের বিভিন্ন ওয়ার্ডের চায়ের দোকানগুলোতে। কোন কোন মেম্বার স্বজন প্রতি দেখিয়ে বিতর্কিত। আবার চেয়ারম্যান মোঃ আঃ রশিদ জনগণের সেবক হিসেবে কতটা সফল হয়েছে। বিধবা ভাতা সহ বয়স্ক ভাতা, মাতৃ কালীন ভাতা সহ সকল বিষয়ে আলোচনার ঝড় বইছে এক একটি চায়ের দোকানগুলোতে। আর সেই আলোচনায় অংশ নিচ্ছে সমাজের বেশীরভাগ লোকজন। এদিকে এলাকার বেশীরভাগ লোকজন গণ মাধ্যম কর্মীদের বলেন, আমরা সোহাগদল ইউনিয়নবাসীরা আগামীর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে নুতন মুখের সন্ধানে। সময় উপযোগী পদক্ষেপ গ্রহণ করতে এরি মধ্যে ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে আলোচনায় ব্যাস্ত সময় পার করছে। করোনার আতঙ্কে আতঙ্কিত আর নই আমরা তাই যা হবার তা হবেই আর একথা গুলো বলেন সুতার বাড়ির এলাকার মোঃ সালেক(৫৮)। সুযোগ পেয়ে মুহূর্তের মধ্যে বহু রাগ ক্ষোভের কথা তুলে ধরেন জোলার ও স্থানীয় গণ মাধ্যম কর্মীদের কাছে। অপরদিকে শেখপাড়ার বেশির ভাগ লোকজন চরম ক্ষোভ নিয়ে রাগ ঝাড়েন বর্তমান চেয়ারম্যান আঃ রশিদের উপর। তাদের ক্ষোভের অন্যতম কারণ এলাকার মধ্যে প্রধান সড়কের বেহাল দশা। পার্শ্ববর্তী ইউনিয়নের মধ্যে বর্তমান চেয়ারম্যান উন্নয়নের রূপকার বলা গেলেও আমাদের ইউনিয়নের চেয়ারম্যানকে উন্নয়নের রূপকার বলতে পারছি না। অপরদিকে সুটিয়াকাঠী ইউনিয়নের মধ্যেও উন্নয়নের জোয়ার বইছে। এদিকে এন ডব্লিউ এলাকায়ও নানান কায়দায় হিসাব নিকাশ কষতে শুরু করে দিয়েছে। অবশ্য এলাকার বেশীরভাগ সুশীল সমাজের লোকজন বর্তমান চেয়ারম্যান আঃ রশিদের উপর বেজায় খুশি। তবে কম সংখ্যক লোকজন সরাসরি নুতন মুখ হিসেবে মোঃ সরোয়ার হোসেন স্বপনকে ইউনিয়ন পরিষদের মসনদে দেখতে চায়। অবশ্য শহীদ স্মৃতি সহ বাইজোড়া, আলকিরহাট, বাহাদুরবাড়ী এলাকায়ও হিসাব নিকাশ একটাই নুতন মুখের প্রার্থী নিয়ে। গ্রামের টোঙ্গ দোকানের মিনি সংসদে আলোচ্য বিষয়ের মধ্যে উঠে এসেছে করোনার আতঙ্কে আমরা সকলেই আতঙ্কিত না হয়ে আমরা প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সুযোগ্য কারিশমায় সকল বাধা আপাতত দূর করতে সক্ষম হয়েছেন। যোগ্য নেতৃত্বের মাধ্যমে একটা ইতিহাস সৃষ্টি করেছে বিশ্বের দরবারে। আর দ্বিতীয় আলোচনা হচ্ছে সোহাগদল ইউনিয়নের মধ্যে আগামীর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন। যদিও সময় বেশি নেই উপজেলার সকল ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন ।স্বরূপকাঠি পৌরসভার নির্বাচন বাকী মাত্র কয়েক মাস। আর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনের সময় এক বছরের অনেক কম। তাই মিনি সংসদে আলোচনার আলোচ্য বিষয়ের মধ্যে নুতন মুখের প্রার্থী নিয়ে আলোচনার ঝড় । তবে বিভিন্ন জায়গার আলোচনায় একটা বিষয় সুস্পষ্ট হয়ে উঠছে নুতন মুখের প্রার্থী মোঃ সরোয়ার হোসেন স্বপনকে নিয়ে। এলাকায় সাধারণ মানুষের পাশে দাড়িয়েছেন গত কয়েক বছর ধরে। প্রচার প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে সুকৌশলে। বিভিন্ন সময়ে জাতীয় উৎসব অনুষ্ঠানে সোহাগদল ইউনিয়নের মধ্যে প্রচার প্রচারণা চোখে পড়ার মত। আর হ্যা পাঠকের জন্য মিনি সংসদের আলোচনা থেকে তুলে ধরলাম নুতন মুখের প্রার্থীর নাম। সবচেয়ে বেশী উচ্চারিত হয় ইউনিয়নের মধ্যে একটি নাম। আর সেটি হলো নুতন মুখের প্রার্থী মোঃ সরোয়ার হোসেন স্বপন।অবশ্য ভিন্ন কথা বলেন ইন্দেরহাট বন্দরের বেশীর ভাগ ব্যাবসায়ীরা। বহু শীর্ষ ব্যাবসায়ীরা সাহসী উচ্চারণ করে বলেন,আগামীর জন্য সবচেয়ে বেশী জনপ্রিয় সমাজ সেবক হিসেবে স্বপন বেশ আলোচনায় রয়েছে। তবে দলীয় প্রতিক বিহীন নির্বাচন হলে সোহাগদল ইউনিয়নের নির্বাচনে বি এন পির বিকল্প নেই আর সেই কথা গুলো বহু প্রবীণ রাজনৈতিক নেতারা অকপটে বলেন। তবে সুষ্ঠু ও সুন্দর নির্বাচন সকলেরই প্রাণের দাবি। এ ব্যাপারে কথা হয় আগামীর স্বপ্ন পূরণ করার দৃঢ় প্রত্যয়ে ব্যাক্ত এ প্রজন্মের অহংকার মোঃ সরোয়ার হোসেন স্বপনের সাথে। সদা হাস্য উজ্জল ও উদার মনের মানুষ হিসাবে সাদাসিধা জবাব। তিনি অকপটে স্বীকার করেন, আমি জনগণের সেবক হিসেবে কাজ করতে চাই সোহাগদল ইউনিয়নের জনগণের জন্য । যদিও আমি সরকারি দলের কঠিন সমর্থক। দল থেকে যে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে তা মেনে নিতে বদ্ধ পরিকর। পাশাপাশি মাননীয় প্রাণী সম্পদ মন্ত্রীর অতি আস্থা বাজন হয়ে বেশ শক্ত অবস্থান। আর সেই কারণে হৈ চৈ ফেলে দিয়েছে সর্ব মহলে। সর্বশেষ তথ্য মতে, এলাকার বেশীরভাগ মানুষের প্রাণের দাবি, আমরা নুতন মুখের সন্ধান খুঁজে খুঁজে একটি নাম পেয়েছি। আর সেই আলোচিত ও জনপ্রিয় নামটি হল আগামীর কান্ডারী মোঃ সরোয়ার হোসেন স্বপন।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Dokhinerkhobor.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com