শুক্রবার, ৩১ Jul ২০২০, ১২:৪৬ অপরাহ্ন

উপ-সম্পাদক :: দিদার সরদার
প্রধান সম্পাদক :: সমীর কুমার চাকলাদার
প্রকাশক ও সম্পাদক :: কাজী মোঃ জাহাঙ্গীর
যুগ্ম সম্পাদক :: মাসুদ রানা
সহ-সম্পাদক :: এস.এম জুলফিকার
প্রধান নির্বাহী সম্পাদক :: মামুন তালুকদার
নির্বাহী সম্পাদক :: সাইফুল ইসলাম
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক :: আবুল কালাম আজাদ
সংবাদ শিরোনাম :
দুর্নীতি: বরিশাল শিক্ষাবোর্ড পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকসহ ৮ কর্মকর্তার সম্পদ অনুসন্ধানে দুদক গৌরনদীর বাটাজোর-সরিকল সড়ক যেন মরণ ফাঁদ, জনদূর্ভোগ চরমে তালতলীতে আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্ত ৫০০ নারীর মাঝে এনএসএস ডিগনিটি কিট বিতরণ আসন্ন কোরবানির পশুর চামড়া নষ্ট হবার আশংকা : কিনতে অনাগ্রহী বরিশালের ব্যবসায়ীরা নগরীতে শেষ মুহূর্তে জমেছে ঈদের কেনাকাটা মেহেন্দিগঞ্জে প্রতিবন্ধী কিশোরীকে গণধর্ষণ, অতঃপর ঔষধ সেবন করিয়ে ভ্রুন নষ্ট আবাসিক হোটেলে কিশোরীকে ধর্ষণ, পটুয়াখালীতে গ্রেফতার ৫ পটুয়াখালীতে হাজার ছাড়াল করোনা রোগী, নতুন শনাক্ত ১৮ বরিশালে পশু কোরবানীর জন্য ১৪২টি স্থান নির্ধারন জেলেপল্লীতে নেই ঈদ আনন্দ
নতুন ‘মহাকাশ অস্ত্র’ পরীক্ষা করছে রাশিয়া!

নতুন ‘মহাকাশ অস্ত্র’ পরীক্ষা করছে রাশিয়া!

যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের সামরিক বাহিনীর অভিযোগ, সম্প্রতি রাশিয়া মহাকাশ-ভিত্তিক স্যাটেলাইট-বিধ্বংসী অস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, দেশ দুটির সামরিক বাহিনীর অভিযোগ, রাশিয়ার একটি স্যাটেলাইট থেকে এমন বস্তু ছোড়া হয়েছে, যা অন্য একটি স্যাটেলাইটকে আঘাত হানতে সক্ষম।

যুক্তরাষ্ট্র এই প্রথম রাশিয়ার বিরুদ্ধে এ ধরনের অস্ত্র পরীক্ষার অভিযোগ আনল বলেও প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের স্পেস কমান্ডের বার্তায় বলা হয়, গত ১৫ জুলাই রুশ স্যাটেলাইট ‘কসমস ২৫৪৩’ থেকে একটি বস্তু কক্ষপথে নিক্ষেপ করা হয়েছে।

রাশিয়া এই স্যাটেলাইটটি মহাকাশে উৎক্ষেপণ করে ২০১৯ সালে। তখন বলা হয়েছিল, এটি একটি ‘পরিদর্শক উপগ্রহ’ হিসেবে কাজ করবে। যুক্তরাষ্ট্রের অভিযোগ, ‘কসমস ২৫৪৩’ থেকে একটি বস্তু আরেকটি রুশ স্যাটেলাইটকে লক্ষ্য করে ছোড়ার কারণে রাশিয়ার ‘পরিদর্শক উপগ্রহ’টির ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন জেগেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের স্পেস অপারেশনসের স্পেস ফোর্স প্রধান ও স্পেস কমান্ডের কমান্ডার জেনারেল জন ডব্লু রেমন্ড এক বার্তায় বলেন, ‘রাশিয়ার স্যাটেলাইট ব্যবস্থা থেকে মাঝে-মধ্যে কক্ষপথে অস্ত্র পরীক্ষা করা হয়। আমরা বিষয়টি নিয়ে এ বছরের শুরুতে উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলাম। তখন পরীক্ষাটি করা হয়েছিল যুক্তরাষ্ট্রের একটি সরকারি স্যাটেলাইটের কাছে।’

অপর এক বার্তায় যুক্তরাজ্যের মহাকাশ অধিদপ্তরের প্রধান এয়ার ভাইস মার্শাল হার্ভি স্মিথ বলেন, ‘এ ধরনের পরীক্ষা শান্তিপূর্ণভাবে মহাকাশ ব্যবহারের জন্যে হুমকি। এসব পরীক্ষার ফলে যে বর্জ্য তৈরি হয় তা অন্য স্যাটেলাইটগুলোকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে। অথচ এসব স্যাটেলাইটের ওপর সারা বিশ্ব নির্ভরশীল।’

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Dokhinerkhobor.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com