মঙ্গলবার, ১৩ অক্টোবর ২০২০, ০৬:১৩ অপরাহ্ন

উপ-সম্পাদক :: দিদার সরদার
প্রধান সম্পাদক :: সমীর কুমার চাকলাদার
প্রকাশক ও সম্পাদক :: কাজী মোঃ জাহাঙ্গীর
যুগ্ম সম্পাদক :: মাসুদ রানা
সহ-সম্পাদক :: এস.এম জুলফিকার
প্রধান নির্বাহী সম্পাদক :: মামুন তালুকদার
নির্বাহী সম্পাদক :: সাইফুল ইসলাম
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক :: আবুল কালাম আজাদ
ছারছীনা শরীফের হযরত পীর ছাহেব কেবলার পক্ষ থেকে দেশবাসীর প্রতি বিশেষ নসীহত

ছারছীনা শরীফের হযরত পীর ছাহেব কেবলার পক্ষ থেকে দেশবাসীর প্রতি বিশেষ নসীহত

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ বর্তমানে সমগ্র পৃথিবীর কঠিনতম নাজুক পরিস্থিতি “করোনা ভাইরাস” থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য ছারছীনা শরীফের হযরত পীর সাহেব হুজুর কেবলা আলহাজ¦ হযরত মাওলানা শাহ্ মোহাম্মদ মোহেব্বুল্লাহ (মা.জি.আ.)-এর পক্ষ থেকে সকল মুসলিম উম্মাহকে বিশেষ করে দেশবাসী ও ভক্তদেরকে বিশেষ কিছু নসীহত দিয়েছেন।
পীর ছাহেব কেবলা বলেন- মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামীন মাঝে মাঝে তাঁর বান্দাদের ভয়, মুসিবত ও বিপদ দিয়ে পরীক্ষা করে থাকেন। আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন যারা অল্পতেই হতাশ হয়ে যাই। সামান্য বিপদে দিশেহারা হয়ে পড়ি। মহান আল্লাহ তাআলা এ সময়ে ধৈর্য্য ধারণ করতে বলেছেন। বিপদে পড়লে আল্লাহর কাছে সাহায্য চাইতে হয়। তিনিই একমাত্র উদ্ধারকারী। তিনি চাইলে মুহুর্তেই বিপদ থেকে মুক্তি দিতে পারেন।
পৃথিবীতে মানুষ যতদিন বেঁচে থাকবে সুখ-দুঃখ, বিপদ-মুসিবত তত দিন থাকবে। বিপদকে ঘৃণা বা খারাপ দৃষ্টিতে দেখার কোনো সুযোগ নেই। আল্লাহ পাক অনেক সময় বিপদ-আপদ দিয়ে বান্দাকে পরীক্ষা করে থাকেন। অনেক সময় বিপদের কারণেই মানুষ আল্লাহর দিকে ফিরে আসে। আবার যখন মানুষ চরম অন্যায়ের দিকে ধাবিত হয় তখনই মানুষের ওপর বিপদ-মুসিবত পতিত হয়।
যেমন পবিত্র কুরআনুল কারীমে আল্লাহপাক এরশাদ করেছেন- এবং আমি অবশ্যই তোমাদেরকে ভীতিপ্রদ পরিস্থিতি, ক্ষুধা-অনাহার এবং অর্থ-সম্পদ, জান ও আয়-উপার্জনের নোকসান ঘটিয়ে পরীক্ষা করবো। এমতাবস্থায় যারা ছবর অবলম্বন করবে, তাদেরকে সুসংবাদ দাও। -সূরা আল বাকারা (আয়াত নং-১৫৫)।
বর্তমানে করোনাভাইরাস আতঙ্কে গোটা বিশ্ব থমকে গেছে। বিশ্বব্যাপী ভাইরাসটি ছড়িয়ে পড়েছে। কিছুদিন পর পর নতুন নতুন রোগব্যাধি ও ভাইরাস এসে আমাদের মনে করিয়ে দেয় যে আমরা যত উন্নতিই করি, মহান আল্লাহর রহমত ছাড়া আমাদের আর কোনো উপায় নেই। এ কারণেই আমাদের উচিত, আল্লাহর নিয়ামতের শুকরিয়া জ্ঞাপন করা এবং সব পাপ থেকে মহান আল্লাহর কাছে তাওবা করা। রাসুলুল্লাহ (সাঃ) যখনই কোনো কঠিন সমস্যা বা বিপদের সম্মুখীন হতেন তখনই আল্লাহর কাছে একান্তভাবে দোয়া প্রার্থনা করতেন।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Dokhinerkhobor.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com