সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০২:৩৯ অপরাহ্ন

উপ-সম্পাদক :: দিদার সরদার
প্রধান সম্পাদক :: সমীর কুমার চাকলাদার
প্রকাশক ও সম্পাদক :: কাজী মোঃ জাহাঙ্গীর
যুগ্ম সম্পাদক :: মাসুদ রানা
সহ-সম্পাদক :: এস.এম জুলফিকার
প্রধান নির্বাহী সম্পাদক :: মামুন তালুকদার
নির্বাহী সম্পাদক :: সাইফুল ইসলাম
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক :: আবুল কালাম আজাদ
শুরুতেই সফল এর পর হতাশা

শুরুতেই সফল এর পর হতাশা

অভিনেতা সুশান্ত সিংহ রাজপুতের মৃত্যুর পর থেকেই স্বজনপোষণের পাশাপাশি বলিউডে সাফল্য কিংবা ব্যর্থতার চর্চাটা উঠে আসছে। রুপালি পর্দার ‘ধোনি’র মতো এমন একাধিক অভিনেতা-অভিনেত্রী আছেন বি টাউনে, যারা ক্যারিয়ারের শুরুতেই পেয়েছেন আকাশচুম্বী সফলতা- যেটা বেশি দিন স্থায়ী হয়নি। হতাশা ও বিষণ্নতায় ধীরে ধীরে সরে গিয়েছেন লাইমলাইট থেকেও। লিখেছেন-জাহিদ ভূঁইয়া

দিয়া মির্জা

২০০০ সাল। ‘মিস এশিয়া প্যাসিফিক’ খেতাব পেয়ে দিয়া মির্জা তখন আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে। বি টাউনে তাকে নিয়ে শুরু হয় হইচই। তুলনা চলতে থাকে প্রিয়াংকা চোপড়া, লারা দত্তদের সঙ্গে। বলিউডের অন্যতম রোমান্টিক ছবি ‘রেহনা হ্যায় তেরে দিল মে’র মাধ্যমে পর্দায় আগমন ঘটে তার। এর পর একাধিক ছবিতে কাজ করলেও শুরুর দিকের সেই নামডাক এখন আর নেই দিয়ার।

জুহি চাওলা

নব্বইয়ের দশকে একের পর এক ছবিতে ঝড় তুলেছিলেন জুহি চাওলা। বহু ছবিতে অভিনয় করে খ্যাতির শিখরে পৌঁছতে খুব বেশি সময় লাগেনি। কিন্তু বিয়ের পরই কেমন যেন হারিয়ে যান তিনি। এ প্রসঙ্গে এক সংবাদমাধ্যমকে জুহি বলেছিলেন, ‘আগে মনে হতো, পৃথিবী যেন আমাকে কেন্দ্র করে ঘুরছে। সূর্য যেন শুধু আমার জন্যই উদয় হয়েছে। তবে এখন সবই বদলে গিয়েছে।’

ববি দেওল

‘বারসাত’ ছবিতে অভিনয় করে রাতারাতি তারকা বনে যান ববি দেওল। এর পর তিনি কাজ করেছেন একাধিক ছবিতে। কিন্তু ততদিনে ববিকে নিয়ে দর্শকদের উন্মাদনা ছিল না বিন্দুমাত্র। স্টারইজম হারানোর জেরে হতাশা যে তাকে গ্রাস করেছিল, এ কথা অভিনেতা নিজেই জানিয়েছিলেন। সেই হতাশা কাটাতে নেশায় আসক্ত হয়ে পড়েন জনপ্রিয় অভিনেতা ধর্মেন্দ্রর এই পুত্র।

ইমরান খান

মিস্টার পারফেকশনিস্ট আমির খানের ভাগ্নে হিসেবে স্বল্প সময়ের মধ্যেই পরিচিতি পেয়ে যান ইমরান খান। জানে তু…ইয়া জানে না’ ছবিতে অনবদ্য অভিনয় করে দর্শক-সমালোচকদের ভূয়সী প্রশংসা পান তিনি। এর পর কিছু ছবিতে তাকে দেখা গেলেও আলোচনায় ছিলেন না বিন্দুমাত্র। তাই ইমরানও চলে যান আড়ালে।

আফতাব শিবদাসানি

‘মাস্ত’ ছবির মাধ্যমে বলিউডে পথচলা শুরু আফতাব শিবদাসানির। রাম গোপাল ভার্মা পরিচালিত সেই ছবি হিট হতেই তাকে নিয়ে শুরু হয় আলোচনা। প্রথম ছবির কল্যাণে তিনি জিতে নেন বেশ কিছু পুরস্কার। কিন্তু শুরুর সাফল্য ধরে রাখতে পারেননি। একবার সংবাদমাধ্যমকে আফতাব বলেছিলেন, ‘রাজা হওয়ার পর যদি গুরুত্ব না থাকে, তা অত্যন্ত বেদনাদায়ক। আমারও মনে হতো, বলিউড দুনিয়ায় আমিই বোধহয় সব থেকে অপ্রয়োজনীয়।’

বিবেক ওবেরয়

বলিউডে আবির্ভাবেই সাড়া জাগিয়েছিলেন বিবেক ওবেরয়। ‘কোম্পানি’ ও ‘সাথিয়া’ ছবিগুলো দেখে সবাই মনে করেছিলেন, ইন্ডাস্ট্রি বোধহয় এক নতুন রতœ পেয়েছে। কিন্তু না! সাফল্য আর সম্ভাবনাকে তুড়ি মেরে ব্যক্তিগত সংঘাতে জড়িয়ে পড়েন তিনি। ধীরে ধীরে ফিকে হতে থাকে তার স্টারইজম। যতটা কম সময়ে বিবেক উঠে এসেছিলেন আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে, তার থেকেও দ্রুত হারিয়ে যান।

ফারদিন খান

চিত্রপরিচালক ফিরোজ খানের ছেলে ফারদিন খান। ‘প্রেম আগান’ ছবি দিয়ে বলিউডের রঙিন ভুবনে পা রাখেন তিনি। এর পর কাজ করেন বেশ কিছু ছবিতে। কিন্তু আগমনের শুরুতে তাকে নিয়ে দর্শকদের মাঝে যে উন্মাদনার সৃষ্টি হয়েছিল, তা অল্প দিনের ব্যবধানেই বাতাসে মিলিয়ে যায়। চরম হতাশা নিয়ে মাদকাসক্তির দিকে ঝুকে পড়েন ফারদিন। মুম্বাইয়ে মাদকসহ একবার পুলিশের হাতে ধরাও পড়েন তিনি।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Dokhinerkhobor.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com