বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ০৬:০৪ পূর্বাহ্ন

উপ-সম্পাদক :: দিদার সরদার
প্রধান সম্পাদক :: সমীর কুমার চাকলাদার
প্রকাশক ও সম্পাদক :: কাজী মোঃ জাহাঙ্গীর
যুগ্ম সম্পাদক :: মাসুদ রানা
সহ-সম্পাদক :: এস.এম জুলফিকার
প্রধান নির্বাহী সম্পাদক :: মামুন তালুকদার
নির্বাহী সম্পাদক :: সাইফুল ইসলাম
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক :: আবুল কালাম আজাদ
রোববার থেকে সপ্তাহের ৫ দিনই বসছে ভার্চুয়াল আপিল বিভাগ

রোববার থেকে সপ্তাহের ৫ দিনই বসছে ভার্চুয়াল আপিল বিভাগ

সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের ভার্চুয়াল পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চ আগামীকাল রোববার থেকে সপ্তাহের পাঁচদিনই বসবে। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত প্রতি সপ্তাহের রোববার থেকে বৃহস্পতিবার বসবে দেশের সর্বোচ্চ আদালত।

এ বিষয়ে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নির্দেশে আজ শনিবার আবারও বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন। আপিল বিভাগের রেজিস্ট্রার মো. বদরুল আলম ভূঁঞার স্বাক্ষরে এই বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়।

এতে বলা হয়, ‘প্রধান বিচারপতি দেশব্যাপী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে শারীরিক উপস্থিতি ব্যাতিরেকে আদালত কর্তৃক তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহার অধ্যাদেশ ২০২০ এবং অত্র কোর্ট কর্তৃক প্রণীত প্র্যাকটিস ডাইরেকশন অনুসরণ করতে তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহার করে শুধু ভার্চুয়াল উপস্থিতির মাধ্যমে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে ভার্চুয়াল কোর্টের মাধ্যমে স্বাভাবিক বিচারকার্য পরিচালিত হবে মর্মে অনুমোদন প্রদান করেছেন।’

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, ‘আপিল বিভাগের ভার্চুয়াল কোর্টে আগামী ১৯ জুলাই থেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত সপ্তাহের রোববার থেকে বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা থেকে সোয়া একটা পর্যন্ত শুনানি গ্রহণ করা হবে। এই দিনগুলোতে সুপ্রিম কোর্টের দৈনন্দিন স্বাভাবিক কার্যক্রম পরিচালিত হবে।’

এর আগে গত ১৪ জুলাই একই বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছিল। ওই বিজ্ঞপ্তিতেও ১৯ জুলাই থেকে সাপ্তাহিক ছুটির দুদিন ছাড়া সপ্তাহে পাঁচদিন আপিল বিভাগ বসার কথা বলা হয়।

তার আগে গত ১১ রাতে জুলাই এক বিজ্ঞপ্তিতে সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন জানায়, সপ্তাহে দুদিন (সোম ও বৃহস্পতিবার) বসবে আপিল বিভাগ। এই নির্দেশনার পরদিন ১২ জুলাই রোববার ও ১৬ জুলাই বৃহস্পতিবার বসেছিল আপিল বিভাগের ভার্চুয়াল পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চ।

উল্লেখ্য, সর্বশেষ গত ১২ মার্চ সশরীরে বসেন প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চ। পরদিন ১৩ মার্চ থেকে সুপ্রিম কোর্টে শুরু হয় অবকাশকালীন ছুটি। এই ছুটি শেষ হওয়ার আগেই দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঘটে। এ অবস্থায় গত ২৬ মার্চ থেকে সারা দেশে নিয়মিত আদালত বন্ধ হয়ে যায়। এ প্রেক্ষাপটে ভার্চুয়াল আদালত চালু করতে গত ৯ মে আদালতে তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহার অধ্যাদেশ, ২০২০ নামে গেজেট প্রকাশ করে।

এই অধ্যাদেশের ক্ষমতাবলে ভার্চুয়াল উপস্থিতি নিশ্চিত করার মাধ্যমে আদালতকে মামলার বিচার, বিচারিক অনুসন্ধান, দরখাস্ত বা আপিল শুনানি, সাক্ষ্যগ্রহণ, যুক্তিতর্ক গ্রহণ, আদেশ বা রায় দেওয়ার ক্ষমতা দেওয়া হয়। পরদিন ১০ মে সুপ্রিম কোর্টসহ সারা দেশে ভার্চুয়াল আদালত পরিচালনার জন্য ‘প্র্যাকটিস নির্দেশনা’ এবং আইনজীবীদের জন্য ‘ভার্চুয়াল কোর্টরুম ম্যানুয়াল’ প্রকাশ করা হয়।

এরপর ১১ মে থেকে ভার্চুয়াল আদালত কার্যক্রম শুরু হয়। প্রথমে শুধুমাত্র সীমিত আকারে নির্দিষ্ট কিছু আদালতে জামিন আবেদনের শুনানি শুরু হয়। পরবর্তী সময়ে ৩০ মে-এর পর আদালতের সংখ্যা ও এখতিয়ার বাড়ানো হয়েছে।

এরপর থেকে আপিল বিভাগের চেম্বার জজ আদালতসহ সারা দেশে আদালতগুলোতে নির্ধারিত নিয়ম অনুসরণ করে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে শুনানি করা হচ্ছে। এর ধারাবাহিকতায় আপিল বিভাগের ভার্চুয়াল পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চ বসার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Dokhinerkhobor.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com