বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১, ০২:০৬ অপরাহ্ন

উপ-সম্পাদক :: দিদার সরদার
প্রধান সম্পাদক :: সমীর কুমার চাকলাদার
প্রকাশক ও সম্পাদক :: কাজী মোঃ জাহাঙ্গীর
যুগ্ম সম্পাদক :: মাসুদ রানা
সহ-সম্পাদক :: এস.এম জুলফিকার
প্রধান নির্বাহী সম্পাদক :: মামুন তালুকদার
নির্বাহী সম্পাদক :: সাইফুল ইসলাম
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক :: আবুল কালাম আজাদ
সংবাদ শিরোনাম :
বানারীপাড়ায় প্রধানমন্ত্রীর ৭৫তম জন্মদিন উপলক্ষে যুবলীগের বৃক্ষ রোপন বানারীপাড়ায় প্লানবিহীন ভবন অপসারনের দাবীতে ব্যাবসায়ীদের মানববন্ধন বানারীপাড়ার সাংবাদিক এস মিজানুল ইসলাম “কবি কাজী নজরুল ইসলাম স্মৃতি পদক-২০২১” পেয়েছেন মাল্টা চাষে স্বাবলম্বী বানারীপাড়ার প্রবাসী হাবিবুর রহমান চালু হওয়ার অপেক্ষায় পটুয়াখালীর দুই মৎস্য অবতরণ কেন্দ্র হিজলায় ৬শত ৪৭ শিশু শিক্ষার্থীর ভবিষ্যত অনিশ্চিত ঝালকাঠিতে ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারদের মানববন্ধন ও স্মারকলিপি পেশ বরিশালে জবাইকৃত নিন্মমানের মহিষের মাংসসহ আটক ৩ মহান শিক্ষা দিবস উপলক্ষে বরিশালে ছাত্র সমাবেশ পটুয়াখালীর লাউকাঠী-লোহালিয়া নদীতে মাছের পোনা অবমুক্ত
মেসিকে রাখতে চায় বার্সেলোনা ম্যানচেস্টার সিটিতে যোগ দেওয়ার গুঞ্জন

মেসিকে রাখতে চায় বার্সেলোনা ম্যানচেস্টার সিটিতে যোগ দেওয়ার গুঞ্জন

এই ধরণীতে কোনো কিছুই চিরস্থায়ী নয়। এই চিরসত্য কথাটি লিওনেল মেসি ও বার্সেলোনার সম্পর্কের ক্ষেত্রে ভিন্ন মেনে আসছিল ফুটবলবিশ্ব। মেসি আর বার্সেলোনা যেন চিরআত্মার বন্ধন। সবাই এটিই মেনে নিয়েছিলেন- মেসি ক্যারিয়ারের শেষ দিন পর্যন্ত বার্সেলোনায় থাকবেন। অবশেষে সেই সম্পর্ক ভাঙনের মুখে!

মঙ্গলবার রাতে আর্জেন্টিনার কিংবদন্তি ফুটবলার লিওনেল মেসির আইনজীবী বার্সেলোনায় ব্যুরো ফ্যাক্সবার্তার মাধ্যমে জানিয়ে দেন, সম্পর্ক ছিন্ন করতে চান তিনি। আর এ খবর পুরো বিশ্বে দাবানলের মতো ছড়িয়ে পড়ে। কাতালানের ক্লাব বার্সেলোনার ন্যু ক্যাম্পের বাইরে হাজারো সমর্থক মেসির জার্সি নিয়ে হাজির হন ও বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। অনেক সমর্থককে কান্নায় ভেঙে পড়তে দেখা যায়।

সারারাত তারা সেখানেই অবস্থান করেন। এ ছাড়া সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বার্সেলোনা ক্লাবের প্রেসিডেন্ট জোসেফ মারিয়া বার্তেমিউয়ের পদত্যাগ দাবি করেন সবাই। বর্তমানে ৩৩ বছর বয়সী মেসির সঙ্গে বার্সেলোনার চুক্তি রয়েছে ২০২১ সালের জুন পর্যন্ত। বার্সেলোনা এখনো ছয়বারের ব্যালন ডি’অরজয়ী মেসিকে ধরে রাখতে চেষ্টা করে যাচ্ছে। এদিকে পেপ গার্দিওলার ম্যানচেস্টার সিটিতে মেসি যোগ দিচ্ছেন বলে গুঞ্জন উঠেছে। অবশ্য আলাপ প্রাথমিক পর্যায়ে রয়েছে।

স্পেন ও ইংল্যান্ডের সংবাদমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে মেসির বার্সেলোনা ছাড়ার ব্যাপারটি। এদিকে শোনা যাচ্ছেÑ মেসি ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা ফিফার কাছেও ক্লাব বদলের জন্য অনুমতি চেয়েছে। কোনো ঝামেলা ছাড়াই মেসি চলে যেতে চান। ম্যানচেস্টার সিটি ও ইন্টার মিলানের নাম শোনা যাচ্ছে। কোথায় যোগ দেবেন সেটির আগে আরও কিছু ব্যাপার রয়েছে। বার্সেলোনা আইনি জটিলতা তৈরি করতে পারে।

আইনের জটিলতা কাটাতে হয়তো মেসি ফিফার দ্বারস্থ হয়েছেন এমনটি হতে পারে। এদিকে ৩১ আগস্ট সোমবার বার্সেলোনার সঙ্গে অনুশীলন করার কথা ছিল মেসির। মেসি অনুশীলন করবেন কিনা সেটি এখনো জানাননি। অনেকে ধারণা করেছিলেন, বার্সেলোনা ক্লাবের প্রেসিডেন্ট বার্তেমিউ পদত্যাগ করলেই মেসি থাকবেন। তবে সেই সম্ভাবনা একেবারে নেই। মেসি যাবেনই এ ব্যাপারে বেশ কট্টর তিনি।

কাতালোনিয়ায় অবশ্য ‘বার্তেমিউ হটাও’ আন্দোলন শুরু হয়েছে। সবাই চাইছেন বার্সেলোনার এই ম্যানেজমেন্টের পরিবর্তন। আর মেসি যেন থেকে যান। সব কিছু দেখে মনে হচ্ছে, সমাধান এত দ্রুত আসবে না। আর সমাধান না আসা পর্যন্ত মেসি বার্সেলোনার হয়ে অনুশীলন করবেন। আর মৌসুম পূর্ববর্তী খেলাতেও অংশ নিতে পারেন। রাতে ইংল্যান্ডের এক মিডিয়ায় জানিয়েছে, মেসির বাবা জর্জ ম্যানচেস্টারে গেছেন, সেখানে চুক্তির ব্যাপারে আলাপ করতে। তেমন হলে নাকি ম্যানচেস্টার সিটির সঙ্গে দুই বছরের চুক্তি করবেন মেসি!

বার্সেলোনার নতুন স্পোর্টিং ডিরেক্টর রামন প্লানেস জানিয়েছেন, বার্সেলোনা এখনো এমন একটি দল তৈরি করতে চায় যেটির কেন্দ্র থাকবেন মেসি। মেসিকে নিয়েই বার্সেলোনার যাবতীয় পরিকল্পনা তাদের। সবচেয়ে বড় কথা এখনো বার্সেলোনার সমর্থকরা আশায় আছেন যে, মেসি ফিরে আসবেন। রামোন বলেছেন, ‘যা হওয়ার তা হয়েছে। আমরা এমন একটি দল তৈরি করতে চাই, যেটিকে নেতৃত্ব দেবেন বিশ্বের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ফুটবলার। আমরা জয়ের ভিত গড়তে চাই বিশ্ব ও ইতিহাসের সেরা ফুটবলারকে নিয়ে। বার্সেলোনা ও মেসির সম্পর্কটি বিয়ের মতো। একজন আরেকজনের পরিপূরক। আশা করি ভবিষ্যৎ ইতিবাচক কিছুই হবে।’

লিওনেল মেসি বিনাশর্তে বার্সেলোনা ছাড়তে চান। গতকাল এ রিপোর্ট লেখার সময় জানা গেছে, মেসির সঙ্গে আলাপ করতে চান বার্তেমিউ। অবশ্য মেসি এর মধ্যে নিজে কোনো বক্তব্য দেননি। করোনা ভাইরাসের পর ফুটবল ক্লাবগুলো সংকটের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। মেসিকে কোনো ক্লাব নিতে চাইলে বাংলাদেশি টাকায় ৭০০৭ কোটি ৬২ লাখ ৭৬ হাজার ২৭০ টাকা দিতে হবে বার্সেলোনাকে। মেসি বিনামূল্যে অন্য ক্লাবে যেতে চান। মেসির সঙ্গে চুক্তি ছিল যে ২০২০ সালের জুনের মধ্যে মেসি ক্লাব ছাড়ার কথা বললে সেটি বার্সেলোনা মেনে নিত। কিন্তু এর মধ্যে করোনা মহামারী শুরু হয়। মেসির পক্ষ থেকে দাবি যে যেহেতু করোনা পরিস্থিতি, সেহেতু এটি বিবেচনায় আসা উচিত। এখন প্রশ্নÑ মেসির জন্য বার্সেলোনা কোর্টে যাবে কিনা? সেটি এখনো কিছু হয়নি। পরে সেটি যাবে। তবে এর মধ্যে মেসি পরবর্তী কোন ক্লাবে যাবেন, সেটি নিয়ে জল্পনা-কল্পনা শুরু হয়েছে। সবার চেয়ে এগিয়ে রয়েছে ইংল্যান্ডের ম্যানচেস্টার সিটি। যে ক্লাবটির কোচ পেপ গার্দিওলা। যিনি একসময়ে বার্সেলোনার কোচ ছিলেন। মেসির সঙ্গে তার সম্পর্ক দুর্দান্ত। মেসিকে নিয়ে তিনি সব জয় করেছিলেন। এ ছাড়া ইন্টার মিলানের কথাও শোনা গেছে।

বিশ্বে ফুটবলারদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি বেতন পান মেসি। বছরে সেটি ৭১০ কোটি টাকা বেতন। মাসের হিসাবে ৬০ কোটি টাকারও বেশি। তা হলে কেন মেসি বার্সেলোনা ছাড়ছেন। বার্সেলোনা এ পর্যন্ত ৫টি চ্যাম্পিয়নস লিগ জয় করেছে। তার মধ্যে ৪টিতেই মেসি রয়েছেন। এ ছাড়া লা লিগা জয় তো রয়েছেই। তবে ৫ বছর ধরে বার্সেলোনা চ্যাম্পিয়নস লিগ জেতেনি। সর্বশেষ লিসবনে চ্যাম্পিয়নস লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে বার্সেলোনা ৮-২ ব্যবধানে হেরে যায় বায়ার্ন মিউনিখের বিপক্ষে। বায়ার্ন মিউনিখ পরে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। এমন হারে চাকরি হারান কোচ সেতিয়েন ও স্পোর্টিং ডিরেক্টর এরিক আবিদাল। সুয়ারেজ, রাকিটিচ, ভিদাল ও উমতিতি আউট হওয়া নিয়ে কথা এখনো চলছেই। আলবা ও বুসকেটসও থাকবেন কিনা সন্দেহ আছে। বায়ার্ন মিউনিখ থেকে ফিলিপ কোটিনহোকে ফিরিয়ে আনা হতে পারে।

বার্সেলোনার নতুন কোচ হয়েছেন কোম্যান। কাল অনুশীলন করিয়েছেন যেখানে ছিলেন না সুয়ারেজ ও মেসি। কোম্যানের সঙ্গে মেসির নাকি বৈঠক হয়। কোম্যান মেসিকে নিয়ে পরিকল্পনা করবেন জানিয়েছেন। এর কিছু দিন পরেই মেসিকে নিয়ে গুঞ্জন শুরু হয়। গুঞ্জন রয়েছে বার্সেলোনার ম্যানেজমেন্টের সঙ্গে মেসির বনিবনা হচ্ছে না। যদিও মেসির কথামতোই নাকি সেতিয়েনকে আনা হয়েছিল। এ ছাড়া গ্রিজম্যান ছাড়া খেলোয়াড় দলে আনার জন্য মেসির নাকি ভূমিকা বেশি। সব মিলিয়ে এমন নানা ঘটনায় তিক্ততা শুরু হয়। ক্লাব দাবি করেছে মেসির সব চাহিদাই পূরণ করা হচ্ছে। অন্যদিকে ক্লাব মেসির চুক্তি নবায়ন করতে চেয়েছিল। সে ক্ষেত্রে মেসির মাথায় নতুন পরিকল্পনা থাকতে পারে বলে অনেকে ধারণা করেন।

২০০১ সালে বার্সেলোনার সঙ্গে যাত্রা শুরু হয় মেসির। লা মেসিয়াতে বেড়ে উঠেছেন তিনি। ১৯৮৭ সালে মেসির জন্ম। ১৯৯৪ থেকে ২০০০ সাল পর্যন্ত মেসি ছিলেন নিওয়েলস ওল্ড বয়েজ ক্লাবে। যেটি আর্জেন্টিনার ক্লাব। এর পর মেসি বার্সেলোনার হয়ে ‘সি’ ও ‘বি’ দলেও খেলেছেন। ১৩ বছর বয়সে বার্সেলোনায় আসা ও ১৭ বছর বয়সে মূল দলে জায়গা হয় তার। ২০০৪ সালে মেসি প্রথম মূল বা সিনিয়র দলে খেলা শুরু করেন। এ পর্যন্ত মেসি সিনিয়র দলের হয়ে ১৬টি মৌসুমে ৩৪টি শিরোপা জিতেছেন। ৪টি চ্যাম্পিয়নস লিগ, ১০টি লা লিগা ছাড়াও অনেক ট্রফি রয়েছে। লা লিগায় ৪৪৪ গোল তার। সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে বার্সেলোনার হয়ে মেসি ৬৩৪ গোল করেছেন।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Dokhinerkhobor.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com