মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০২০, ১২:১৮ অপরাহ্ন

উপ-সম্পাদক :: দিদার সরদার
প্রধান সম্পাদক :: সমীর কুমার চাকলাদার
প্রকাশক ও সম্পাদক :: কাজী মোঃ জাহাঙ্গীর
যুগ্ম সম্পাদক :: মাসুদ রানা
সহ-সম্পাদক :: এস.এম জুলফিকার
প্রধান নির্বাহী সম্পাদক :: মামুন তালুকদার
নির্বাহী সম্পাদক :: সাইফুল ইসলাম
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক :: আবুল কালাম আজাদ
স্বরূপকাঠি উপজেলার বিনায়েকপুরে গরু মহিষ চুরির হিড়িক পড়েছে

স্বরূপকাঠি উপজেলার বিনায়েকপুরে গরু মহিষ চুরির হিড়িক পড়েছে

এনএম দেলোয়ার, পিরোজপুর ॥ কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে পিরোজপুর জেলার মধ্যে স্বরূপকাঠি উপজেলায় গরু মহিষ ও ছাগল চুরির হিড়িক পড়েছে। গত পরশু বিনায়কপুর এলাকায় মোঃ মাসুদ ও মোঃ আনোয়ারের লক্ষাধিক টাকার ৫ টি গরু চুরির অভিযোগ উঠেছে। এলাকার বেশীরভাগ লোকজন জানান, চুরি হওয়ার আগের রাত্রে মোঃ মজিদ আমিনের ছেলে মোঃ মুনিরের বিনায়কপুর এলাকায় অহেতুক ঘোরাঘুরি করা নিয়ে সন্দেহ হয়। আর ঐ রাতেই গরু চুরির ঘটনার জন্ম হয়। এলাকার বেশীরভাগ লোকজনের ভাষ্য মতে বিনায়কপুর এলাকার মজিদ আমিনের ছেলে মোঃ মুনির দীর্ঘদিন ধরে চুরির সাথে জড়িত। গত এক বছর আগে স্বরূপকাঠি প্রেসক্লাবের সাংবাদিক মোঃ সিফাত উল্লাহ নেছারেরর বড় ভাইর ফার্ম থেকে প্রায় ১০ লক্ষ টাকার মূল্যবান গরু চুরির অভিযোগ উঠেছে মুনিরের বিরুদ্ধে। অবশ্য এক রাজনৈতিক নেতার বিশেষ আর্শীবাদ থাকায় সেই সময়ে গরুচোর সন্দেহের তালিকায় মুনির কোন মতে পারপেয়ে যায়। এদিকে মুনিরের পাশাপাশি সেহাঙ্গলের মৃত জাফর হাওলাদারের ছেলে চোর চক্রের আর এক গড় ফাদার মোঃ সরোয়ার(৪৬) ও দীর্ঘদিন ধরে চুরি বিদ্যায় বেশ পাকাপোক্ত অবস্থান। গত পরশু গরু চোরের প্রধান মোঃ মুনিরকে এলাকার স্বার্থে বেশির ভাগ লোকজন গণ পিটুনি দিয়ে স্থানীয় প্রশাসনের হাতে তুলে দেন। স্থানীয় মজিদ আমিনের ছেলে এলাকায় বর্তমানে দুর্র্ধষ গরু মহিষ চুরির মহা ওস্তাদ বলে ভুক্তভোগীরা গণ মাধ্যম কর্মীদের বলেন। এদিকে সরোবর হাওলাদার গত কয়েক মাস আগে একই এলাকার মোঃ শাজাহান খান ও নেছার উদ্দিন খানের গরু চুরি করে। গরু চুরির ঘটনার সত্যতা পাওয়ার পর পরবর্তীতে সম মূল্যের টাকা দিয়ে দেয় মোঃ সরোয়ার । অপর দিকে গরু চোরের গড় ফাদার সরো চোরা মোঃ ওদুদ বেপারী ও আঃ জলিলের প্রায় লক্ষাধিক টাকার গরুও চুরি করে দুর্র্ধষ গরু চোরের অন্যতম আর এক প্রধান সরোয়ার। এদিকে গত পরশু আবারও সেহাঙ্গলের বিনায়কপুর এলাকার গরু চুরির ঘটনার পর পরই চোর চক্রের অন্যতম গড় ফাদার মুনির কে নিয়ে সন্দেহের তীর স্থানীয় সকলের।মুনির দীর্ঘদিন ধরে সমুদয়কাঠীর মধ্যে গুরু চুরির চক্রের সাথে সম্পৃক্ততা রয়েছে বলে এলাকার বেশীরভাগ লোকজন জানান। আর সেই সূত্র ধরেই সমুদয়কাঠী ইউনিয়নের মধ্যে বিনায়কপুর এলাকায় গরু মহিষ চুরির অভিযোগ উঠেছে আঃ মজিদ আমিনের ছেলে মোঃ মুনিরের বিরুদ্ধে। এ ব্যাপারে এলাকার বেশীরভাগ সুশীল সমাজের লোকজন গণ মাধ্যম কর্মীদের বলেন, আসলে আমাদের এলাকায় সবচেয়ে বড় চোর হলেন নামকরা চোরা বাবুল। মৃত নূর মোহাম্মদের ছেলে মোঃ বাবুল সমুদয়কাঠীর মধ্যে সবচেয়ে ভি আই পি মার্কা চোর। বর্তমানে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ একজন গড় ফাদার হিসেবে সুপরিচিত রয়েছে জেলার মধ্যে । তবে গরু মহিষ ও ছাগল চুরির বর্তমান গড় ফাদার মোঃ মুনির ও সরোয়ার হাওলাদার। সর্বশেষ তথ্য মতে এলাকার গণ মানুষের হাতে গন পিটুনি খাওয়ার পর প্রশাসনের কব্জায় মোঃ মুনির। তবে প্রশাসন আইনের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে এলাকার স্বার্থে আইনের আওতায় এনে বর্তমানে জেলা জেল হাজতে প্রেরণ করেন মুনিরকে। এ ব্যাপারে স্থানীয় প্রশাসনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা গরু চুরির ঘটনার কথা অকপটে স্বীকার করেন। আইনের ধারা মতে শাস্তি হোক আর সেই প্রত্যাশা সমগ্র উপজেলাবাসীর।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Dokhinerkhobor.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com