বুধবার, ২০ জানুয়ারী ২০২১, ০৫:০০ পূর্বাহ্ন

উপ-সম্পাদক :: দিদার সরদার
প্রধান সম্পাদক :: সমীর কুমার চাকলাদার
প্রকাশক ও সম্পাদক :: কাজী মোঃ জাহাঙ্গীর
যুগ্ম সম্পাদক :: মাসুদ রানা
সহ-সম্পাদক :: এস.এম জুলফিকার
প্রধান নির্বাহী সম্পাদক :: মামুন তালুকদার
নির্বাহী সম্পাদক :: সাইফুল ইসলাম
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক :: আবুল কালাম আজাদ
সংবাদ শিরোনাম :
বরিশাল অঞ্চলের ২৭ নৌপথে ৪৭০ কিমি দৈর্ঘ্যে খননের প্রস্তাবনা পটুয়াখালীতে বিড়াল উদ্ধারে ফায়ার সার্ভিস নলছিটিতে জেলা পরিষদ সদস্যের বিরুদ্ধে বাঁধ নির্মাণের অভিযোগ আফসার’র খুনীদের গ্রেফতার করে নির্বাচনে সুষ্ঠ পরিবেশ ফিরিয়ে আনুন, জানাযা নামাজে -পৌর মেয়র কামাল চরফ্যাসনে স্ত্রীর সাথে অভিমানে স্বামীর বিষপানে মৃত্যু আমি হব পৌরসভার পাহারাদার…….নৌকা প্রতিকের মেয়র প্রার্থী মোঃ হারিছুর রহমান বছরের মাঝামাঝি রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু ঝালকাঠি ছাত্রলীগ নেতার পিতা ভুয়া মেজর গ্রেপ্তার বরিশাল মহানগর ও জেলা ছাত্রদলের আয়োজনে আলোচনা সভা ও দোয়া-মোনাজাত বাকেরগঞ্জ সাংবাদিকদের সাথে নবাগত ওসির মতবিনিময়
বোরহানউদ্দিনে বিয়ের পর অপহরণ মামলায় বর জেলে

বোরহানউদ্দিনে বিয়ের পর অপহরণ মামলায় বর জেলে

বোরহানউদ্দিন প্রতিনিধিঃ প্রেমের সম্পর্কে মেয়ে ছেলের বাড়িতে এসে হাজির হয়। পরে নোটারী পাবলিকের মাধ্যমে তাদের বিবাহ হয়। আর সেই বিবাহ মানতে রাজি হয়নি মেয়ের বাবা মাহাবুবুর রহমান। পরে বোরহানউদ্দিন থানায় অপহরণ মামলায় ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলার পৌর ৪ নং ওয়ার্ডের নিরব মাতাব্বরের ছেলে মোঃ জিছান (২০) কে জেলে পাঠিয়েছেন পুলিশ। যাহার নং ১৬/২৮০, তাং ২০-১২-২০২০ ইং বোরহানউদ্দিন থানা। স্থানীয়রা জানায়, পৌর ৪ নং ওয়ার্ডের নিরব মাতাব্বরের ছেলে মোঃ জিছানের সাথে টবগী ইউনিয়নের দালালপুর গ্রামের ৬ নং ওয়ার্ডের মাহাবুবুর রহমানের মেয়ে আফসারীন খানম অর্ণীর সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। আর সেই প্রেমের সম্পর্কের দাবী নিয়ে জিছানের বাড়িতে বিবাহের দাবীতে হাজির হন আফসারীন খানম অর্ণী। পরে ভোলা নোটারী পাবলিকের মাধ্যমে বিবাহ হয় জিছান ও আফসারীন খানম অর্ণীর । খবর পেয়ে ছেলের বাড়িতে হাজির হন মেয়ের বাবা মাহাবুবুর রহমান।  মেয়েকে বুঝিয়ে নিতে না পেরে অবশেষ মেয়েকে  জিসানের বাড়িতে রেখে চলে যান তিনি। এ ঘটনার ৪ দিন পরে ওই  পরিবারের  বিরুদ্ধে বোরহানউদ্দিন থানায় একটি অপহরন মামলা দায়ের করেন।  মামলা দায়েরের পর পুলিশ জিছানকে আটক করেন। আফসারীন খানম অর্ণীর বাবা মাহাবুবুর রহমান জানান, আমার মেয়ে দশম শ্রেণীতে পড়ে। আমার মেয়েকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে ছেলের পক্ষ করেছেন। তাই আমার মেয়ে আমার কথা শোনে না। আমার মেয়ের বিবাহের বয়স হয়নি। আমি ছেলের বিরুদ্ধে অপহরন মামলা করব। আফসারীন খানম অর্ণী বলেন, আমার সাথে জিছানের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। বুধবার আমি জিছানের বাড়িতে  আমার ইচ্ছায় চলে আসি। নোটারী পাবলিকের মাধ্যমে আমাদের বিবাহ হয়। আমার বাবা আমাদের বিবাহ মানতে চায়নি। তাই আমার স্বামীর বিরুদ্ধে অপহরন মামলা দিয়েছে।  আমার স্বামী কোন দোষ করেনি। আমার স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা দেওয়ায় তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। জিছানের বাবা নিরব মাতাব্বর বলেন, আমার ছেলে ও মেয়ের সাথে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। বুধবার  আমার বাড়িতে মেয়েটি চলে আসে। পরে মেয়ের পরিবারকে খবর দেই। তারা এসে মেয়েকে মারধোর করে  চলে যায়। পরে তাদের দুজনের বিবাহ হয়। বিবাহের ৪ দিন পরে আমাদের বিরুদ্ধে একটি অপহরন মামলা দেয়।
বোরহানউদ্দিন থানার অফিসার ইনচার্জ মাজহারুল আমিন বিপিএম জানান, মেয়ের বাবার অভিযোগে থানায় মামলা হয়েছে। মামলা তদন্ত আছে। আসামী গ্রেপ্তার আছে। ভিক্টিম উদ্ধার করা হয়েছে। আসামী ও ভিক্টিম বিজ্ঞ  আদালতে প্রেরন করা হয়েছে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Dokhinerkhobor.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com