রবিবার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ০৬:৫৪ অপরাহ্ন

উপ-সম্পাদক :: দিদার সরদার
প্রধান সম্পাদক :: সমীর কুমার চাকলাদার
প্রকাশক ও সম্পাদক :: কাজী মোঃ জাহাঙ্গীর
যুগ্ম সম্পাদক :: মাসুদ রানা
সহ-সম্পাদক :: এস.এম জুলফিকার
প্রধান নির্বাহী সম্পাদক :: মামুন তালুকদার
নির্বাহী সম্পাদক :: সাইফুল ইসলাম
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক :: আবুল কালাম আজাদ
সংবাদ শিরোনাম :
কুয়াকাটায় দখলমুক্ত ও জলাবদ্ধতা থেকে রক্ষা পেতে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান করেছে খাল পুনরুদ্ধার কমিটি

কুয়াকাটায় দখলমুক্ত ও জলাবদ্ধতা থেকে রক্ষা পেতে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান করেছে খাল পুনরুদ্ধার কমিটি

লুৎফুল হাসান রানা, কলাপাড়া : কুয়াকাটায় নবীনপুর গ্রামের কচ্ছপখালী খাল দখলমুক্ত ও জলাবদ্ধতা থেকে রক্ষা পেতে রোববার রাত ৯টার দিকে কুয়াকাটা প্রেসক্লাবের সামনে সড়কে মানববন্ধন করেছে কচ্ছপখালী খাল পুনরুদ্ধার কমিটি। এসময় স্থানীয় সংসদসদস্য আলহাজ্ব অধ্যক্ষ মহিববুর রহমান এমপি মানববন্ধনে অংশগ্রহনকারীদের সমস্যার কথা শেনেন এবং তা সমাধানে তিনি তাদের পাশে থাকবে এ আশ্বাস দেন। সংসদসদস্য অধ্যক্ষ মুহিব সাথে সাথে কুয়াকাটা পৌরমেয়র আ: বারেক মোল্লা কে বিষয়টি সমাধানের জন্য বলেন। পৌরমেয়র খালের পানির প্রবাহ সচল রাখতে আগামী দুই মাসের মধ্যে একটি কালভার্ট করে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেন।
স্বারক লিপিতে কচ্ছপখালী খাল পুনরুদ্ধার কমিটি ৫টি দাবী জানান। দাবী গুলো হলো ১. কচ্ছপখালী খালের সীমানা জরিপ এবং সরকারী ম্যাপ তৈরী করে রেকর্ডে অর্šÍভূক্ত করা। ২.সরকার ঘোষণা করুক,পুর্বের খালের জমির চিত্র পরিবর্তন করা যাবে না। ইতিমধ্যেই যে সমস্ত জমির চিত্র পরিবর্তন করা হয়েছে,তা সংশোধন করতে হবে। ৩.খালের প্রবাহমান পানি নিস্কাশনের ব্যবস্থা করতে হবে এবং তিনটি বাঁধ কেটে দিয়ে একটি বাঁধে স্লুইস গেট বা কালভার্ট স্থাপণ করতে হবে। ৪.কালভার্ট করার জন্য জনগনের চলাচল উপযোগী বিকল্প একটি সরকারী রাস্তা (যা ব্যক্তি মালিকানাধীণ তার কাটার বেড়া দেয়া আছে) ব্যবস্থা করা। ৫.খাল খনন করতে হবে। যাতে কৃষকরা সেচের কাজে খালের পানি ব্যবহার করতে পারেন এবং কৃষি কাজ শুরু করা যায়। পাশাপাশি পরিবেশ রক্ষার জন্য জোরদাবী জানান তারা।
মানববন্ধনকালে কচ্ছপখালী খাল পুনরুদ্ধার কমিটির আহবায়ক মো: শাহজাহান মৃধা বলেন, কয়েক বছর ধরে একটি স্বার্থান্বেষী মহল কচ্ছপখালী খালে বাঁধ দিয়ে মাছ চাষ করে আসছে। যাদের নামে প্রবাহমান খাল ভূমিহীন বন্ধোবস্ত দেয়া হয়েছে। ভোগদখল করছে একটি প্রভাবশালী মহল। শাহজাহান মৃধা আরো বলেন, খাল বন্ধোবস্ত গ্রহিতারা খালের বন্ধোবস্ত বাতিল করে অন্য জায়গা থেকে জমি দেয়ার জন্য জেলা প্রশাসকের কাছে আবেদন করেছে। অথচ খালটি ভোগদখল ও মাছ চাষ করছে প্রভাবশালী একটি মহল। খালে বাঁধ দিয়ে মাছ চাষ করার কারনে কচ্ছপখালী, আজিমপুর,দোভাসী পাড়া,নবীনপুর,পাঞ্জুপাড়া ও থঞ্জুপাড়া গ্রামে জলাবদ্ধায় কয়েক হাজার একর ফসলি জমি ও বাড়িঘর তলিয়ে গিয়ে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে এসব গ্রামবাসী। এ খালের উপর থাকা বাঁধ কেটে দিয়ে পানির প্রবাহ সচল করার দাবী জানান কচ্ছপখালী খাল পুনরুদ্ধার কমিটি।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার করুন..



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2017 Dokhinerkhobor.Com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com